Breaking News
Home / জাতীয় / রেলের দুষ্ট চক্র ভাঙ্গ‌তে এবার ক‌ঠোর অবস্থা‌নে যা‌চ্ছেন ,‌রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন,

রেলের দুষ্ট চক্র ভাঙ্গ‌তে এবার ক‌ঠোর অবস্থা‌নে যা‌চ্ছেন ,‌রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন,

রে‌লের দুস্টচক্র ভাঙ্গ‌তে এবার ক‌ঠোর অবস্থা‌নে যা‌চ্ছেন ,‌রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

মোহাম্মদ আ‌নিছুর রহমান ফরহাদ,চট্টগ্রাম কো‌তোয়ালী প্র‌তি‌নি‌ধি। মাননীয় মন্ত্রী বাংলাদেশ রেলওয়ে কে লাভ জনক প্রতিষ্ঠানে রূপ দেয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সকল পরিশ্রম চেষ্টা পরিকল্পনা ব্যর্থ হয়ে যাবে যদি অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে দুর্নীতি বাজ কর্মকর্তা কর্মচারী অসৎ ঠিকাদারদের মালিকাধীন প্রতিষ্ঠানকে এখনি না ধরতে পারেন দুর্নীতি গ্রন্থ প্রতিষ্ঠান গুলো কে কালো তালিকা ভুক্ত করুন ঐ দুষ্ট চক্রের সাপলাইয়ার্স প্রতিষ্ঠানের মালিক গুলো এক এক জনের নামে বেনামে বা আত্মীয় স্বজনের নামে ভিন্ন ভিন্ন নামে প্রতিষ্ঠানের নাম দিয়ে তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে নিয়েছে আপনি যদি কোন প্রতিষ্ঠানের নামে শাস্তি মুলক ব্যাবস্থা ও নেন তাদের কোন অসুবিধা হয়না সিন্ডিকেট এবং একাধিক প্রতিষ্ঠানের মালিক একই ব্যাক্তি হওয়ার কারনে কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা কর্তাব্যক্তিদের যোগসাজশে জাপানি মালের স্যাম্পল দেখিয়ে ওয়ার্ক অর্ডার নিয়ে ডেলিভারি দিচ্ছে মেড ইন জিন্জিরা সিলগালা জাপানি ঠিক ই আছে শুধু মাত্র সিলটাই অরিজিনাল বাকি সব ভুয়া যে মাল পাঁচ বছর অনায়াসে ব্যবহার করার কথা সেইটা দেখা গেল মাত্র দুই মাস ও নিচ্ছে না এমন ঘটনা ও আছে সম্পর্ন মাল ডেলিভারি দেয়ার আগেই বিল উঠিয়ে ঠিকাদার নাকে তেল দিয়ে ঘুমোচ্ছে বিভিন্ন প্রকল্পের পি ডি স্যার দের কথা তো অনেক লেখা লেখি হইছে গাড়ি গুলোর কোন খবর ই নেই যে কার গাড়ি কে ব্যাবহার করছে একজনের নাম তো না বললেই নয় লাকসাম থেকে আখাউড়া ডাবল লাইনের যে পি ডি তিনি রেললাইনের জন্য পাবলিকের জমি অধিগ্রহণ করতে গিয়ে যে জায়গার মূল্য ছিল ডিসিম বিশ হাজার টাকা জায়গায় মালিক দের সাথে যোগসাজশে তিনি সেই জায়গার দাম দুই লাখ টাকা করে সরকারের পক্ষ থেকে ক্রয় করছে জায়গার মালিক কে কিছু দাম বাড়িয়ে দিয়ে বাকি টাকা উনি সহ সিন্ডিকেটের পকেটে ওনার বিরুদ্ধে আমরা অনেক লেখালেখি করার পর ওনাকে আপাতত অন্য জায়গায় সরিয়ে নেয়ার হয়েছে জনগণের ভোগান্তি চরম পর্যায়ে পৌছে গেছে কিছু জায়গায় ফয়সালা এখনো হয়নি ওনার দুর্নীতির ফিরিস্তি টেবিলে নিয়ে পেশাগত দায়িত্ব থেকে ওনাকে ফোনে ইন্টারভিউ করতে চাইলাম প্রথমে ওনার উত্তর ছিল আমি তো এখন আর ঐ দ্বায়িত্বে নেই মানুষের এত টাকা ফেরত দিবেন কিভাবে জানতে চাইলে তিনি আমাকে পারসোনাল অন্য কোন জায়গায় দেখা করতে বলে এবং আমাকে বাড়াবাড়ি না করার শর্তে পুষিয়ে দিবে বলে আস্বস্ত করে এবং আমাকে হুমকির সুরে বলে যে ওনাদের হাত অনেক লম্বা আমার খুব ইচ্ছা ছিল ঐ লম্বা হাত গুলো দেখার কিন্তু নিজ খরচে হুমকি ধামকি উপেক্ষা করে সঠিক তথ্য উপাত্ত সহ সোশ্যাল মিডিয়া ফেইজবুক সহ বিভিন্ন মাধ্যমে অনেক লেখালেখি করার পর ও কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চরম ভাবে ব্যার্থ হয়েছি হতাশ হয়েছি কিছু টা বুঝতে পেরেছি হাত যে অনেক লম্বা ফেইজবুকে পাঁচ হাজার বন্ধু এবং সাত হাজারের ও বেশি ফরোয়ার্ড আছে আমার কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্য কেউ জানতে ও চায়নি এই হলো দেশ প্রেমিক বন্ধুদের আচরণ বিষয় টা আমাকে খুব মর্মাহত করেছে তবু হাল ছেড়ে দিইনি কারন বেলাশেষে সব লোকেশনের দায়ভার জননেত্রী শেখ হাসিনা তথা সরকারি দল হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে বহন করতে হবে আর সেই দ্বায় বদ্ধতা থেকে অতি সম্প্রতি সুনির্দিষ্ট তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে ডিজি মহোদয়ের দুর্নীতির একটি তথ্য ফেইজবুকে ভাইরাল করলাম তা হলো বাজারে সাধারণত লোহার কেজি প্রতি দাম কমবেশি ৪৮ টাকার মতো কিন্তু তা সত্যেও ওনার ক্ষমতা বলে বিনা টেন্ডারে ওনার ঠিকাদার ব্যবসায়ী পার্টনারের কাছে অর্ধেক দামে মানে মাত্র ২৬ টাকা দরে হাজার টন লোহা বিক্রি করে দিয়েছেন এত বড় দুর্নীতির খবর ভাইরাল হওয়ার পরও যখন কোন প্রতিক্রিয়া নেই আরও আগ্রহ জন্ম নিয়েছে মনে জানতে চাইলাম ডিজি মহোদয়ের ক্ষমতার উৎস কি? অবশেষে কিছু বিষয়ে পরিস্কার হলাম প্রথমত তিনি সৌভাগ্য বান কারন চট্টগ্রামে ওনার শশুর বাড়ী এবং খুব প্রভাবশালী নেতাদের এলাকায় রাউজান উপজেলায় রেল মন্ত্রনালয়ের দুই বারের যিনি স্থায়ী কমিটির সভাপতি জনাব ফজলে করিম এমপি ওনার এলাকায় এও শুনেছি ওনাদের দুই জনের মধ্যে সম্পর্ক বেশি ভালো নয় অন্য জন হলেন সদ্য বিদায়ী যুবলীগের সাবেক চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী সাহেব এতো গেলো শশুর বাড়ীর দিকের আত্মীয় স্বজন এছাড়া ও অনেক প্রভাবশালী মহল ওনাকে এই পদে বসতে সহযোগিতা করেছিলেন কথা হচ্ছে বছর শেষে দেখা যাবে ৮০০ কোটি বা একটু কমবেশি লোকসান হইছে মন্ত্রী মহোদয় আপনি একজন সৎ মানুষ কোন সন্দেহ নেই সচিব মহোদয় ও ভালো লোক কিন্তু কি লাভ হবে একজন ঝাড়ুদার থেকে শুরু করে পিয়ন থেকে শুরু করে ফোরম্যান ইঞ্জিনিয়ার থেকে শুরু করে এডিসি Rs থেকে শুরু করে ডিজি পর্যন্ত দুর্নীতিতে সাঁতার কাটছে দুই একজন সৎ হয়ে লাভ নেই পুরো রেল মন্ত্রনালয় কে ঢেলে সাজাতে হবে এবং সকাল কর্মকর্তা কর্মচারী দের সম্পদের হিসাব তলব করলেই থলের বিড়াল বেরিয়ে আসবে না কারো খাই না পরি না কারো চাকরি করি দলের ভালোবাসা আর সামাজিক দ্বায় বদ্ধতা থেকে এত রিক্স নিয়ে এই পর্যন্ত তুলে ধরার চেষ্টা করেছি জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত কে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে উন্নয়ন যাতে বাধাগ্রস্থ না হয় সেই কারণে আজকের এই প্রতিবেদন এতে যদি রেল মন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্ট সকলের কিছু টা দৃষ্টি গোছর হয় রাত জেগে লেখাটা সার্থক মনে হবে ধন্যবাদ সবাইকে ।

Check Also

শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে মু‌জিব বর্ষ পালনের ঘোষানা

শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে মু‌জিব বর্ষ পালন ঘোষানা। ,‌মোহাম্মদ আ‌নিছুর রহমান ফরহাদ ,‌কো‌তোয়ালী প্র‌তি‌নি‌ধি। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *