Breaking News
Home / জাতীয় / আমিরাতে আজ আসবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আমিরাতে আজ আসবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আমিরাতে আজ আসবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 
মরা মানুষের চেয়ে যারা জিন্দা আছে তাদেরকে আগে বাঁচান। নতুন ভিসার পরিবর্তে বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা ট্রান্সফার ব্যবস্থা চালু করার আবেদন জানাচ্ছি।
স্বাধীনতার স্থপতি রাজনীতির কবি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর সুযোগ্য কন্যা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সংযুক্ত আরব আমিরাত আগমন উপলক্ষে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই। সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবির সাসটেইনেবিলিটি উইক-২০২০’ ও ‘জায়েদ সাসটেইনেবিলিটি প্রাইজ’ প্রদান অনুষ্ঠানে অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী রবিবার (১২ জানুয়ারি) সংযুক্ত আরব আমিরাতে আসছেন। তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রী, ভাইস প্রেসিডেন্ট ও দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুমের আমন্ত্রণে দু দিনের সরকারি সফরে আবুধাবি আসছেন। জানা গেছে, রবিবার বিমান বাংলাদেশের একটি বিশেষ ফ্লাইটে আমিরাত সময় রাত ১০-৪৫ মিনিটে তিনি আবুধাবি পৌঁছাবেন। সফরকালে প্রধানমন্ত্রীর সাথে পররাষ্ট্রমন্ত্রী, জ্বালানিমন্ত্রী, প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী, বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী আমিরাতে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছাড়াও আমিরাতের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনা হবে তার। এটাই হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের সরকার প্রধানের নতুন বছরে প্রথম বিদেশ সফর। আমরা আবারো আশায় কান পেতে আছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই সফরের মাধ্যমে ভালো কিছুর সংবাদ আমরা পাবো বলে। দীর্ঘ অনেক বছর পর্যন্ত আরব আমিরাতে নতুন ভিসা ও অভ্যন্তরীন ভিসা পরিবর্তন পদ্ধতি বন্ধ আছে। বর্তমানে বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য অভ্যন্তরীণ ‘ভিসা ট্রান্সফার’ ব্যবস্থা চালু করা খুব জরুরী। দীর্ঘদিন ধরে ভিসা পরিবর্তনের সুযোগ না থাকায় দেশটিতে অবস্থানরত হাজার হাজার প্রবাসীর ভোগান্তির শেষ নেই কিন্তু ভিসা পরিবর্তনের ভালো কোন খবর পাওয়া গেলে প্রবাসীদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসবে। ২০১২ সালে মাঝামাঝি সময়ে বাংলাদেশিদের অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধি ও অনভিজ্ঞ শ্রমিক পাঠানোসহ বেশ কিছু কারণ দেখিয়ে আমিরাত সরকার বাংলাদেশিদের ভিসা বন্ধ করে দেয়। উল্লেখ্য, মধ্যপ্রাচ্যে সৌদি আরবের পর বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহৎ শ্রমবাজার আমিরাতে বর্তমানে ১০ লাখেরও বেশি কর্মী রয়েছে। দেশের অর্থনীতির উন্নয়ন চলে এদেশের প্রবাসীদের উপার্জিত টাকায়। বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকা সচল রয়েছে প্রবাসী শ্রমিকদের পাঠানো রেমিটন্সের উপর। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর আমিরাত সফর নিয়ে প্রবাসীদের মাঝে উচ্ছ্বাসের কমতি নেই। কেননা প্রধানমন্ত্রীর বিগত সফরে আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স তথা সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভবিষ্যত রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান প্রধানমন্ত্রীকে আশ্বস্হ করেছেন প্রধানমন্ত্রীর পরবর্তী সফরে বাংলাদেশী বন্ধ শ্রমবাজার নিয়ে প্রশ্ন করতে হবে না।
তাই প্রধানমন্ত্রীর এবারের সফরে দেশীয় প্রবাসীরা আমিরাতে আট বছর ধরে বন্ধ থাকা ভিসা ও ভিসা পরিবর্তনের দ্বার উম্মুক্ত হবে বলে আশা করছেন। আমি সরকারের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি। প্রয়োজন হলে কূটনৈতিক পদ্ধতি পরিবর্তন করে বা কূটনৈতিক তৎপরতা বৃদ্ধির মাধ্যমে ভিসা চালু বা অভ্যন্তরীণ ভিসা পরিবর্তন প্রক্রিয়ার সুযোগ সৃষ্টি একান্ত আবশ্যক। বাংলাদেশী প্রবাসীদের স্বপ্ন ও প্রত্যাশা পূর্ণ হোক এই কামনা করি।

Check Also

বাংলাদেশের আধুনিক ক্রীড়ার প্রবর্তক শহীদ শেখ কামালের ৭১তম জন্মদিন আজ

বাংলাদেশের আধুনিক ক্রীড়ার প্রবর্তক শহীদ শেখ কামালের ৭১তম জন্মদিন আজ ৫ অগাস্ট ১৯৪৯ সালের বঙ্গবন্ধুর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *