Breaking News
Home / খেলাধুলা / ভারতকে হারাতে পারলেই রচিত হবে সোনালি এক অধ্যায়…

ভারতকে হারাতে পারলেই রচিত হবে সোনালি এক অধ্যায়…

ভারতকে হারাতে পারলেই রচিত হবে সোনালি এক অধ্যায়..….

দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমের সেনউইজ পার্কে আজ (৯ ফেব্রুয়ারি) যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারত। কেবল যুব বিশ্বকাপই নয় আইসিসির কোন ইভেন্টে বাংলাদেশ এবারই প্রথম ফাইনাল খেলছে। ভারতকে হারাতে পারলেই রচিত হবে সোনালি এক অধ্যায়ের, দেশের ক্রিকেট ইতিহাসে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছাবে আকবর আলির দল। যুব বিশ্বকাপে এর আগে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সফলতা ছিল ২০১৬ সালে ঘরের মাঠে মেহেদী হাসান মিরাজের নেতৃত্বে সেমিফাইনাল খেলা।

দুই বছরের ব্যবধানে তাদেরই ছাড়িয়ে গেছে তানজিদ হাসান তামিম, মাহমুদুল হাসান জয়, তানজিম হাসান সাকিব, শাহাদাত হোসেন, শরিফুল ইসলামরা। এবার হাতছানি দিয়ে ডাকছে ট্রফি নিয়ে দেশে ফেরার উপলক্ষও। ফাইনালের আগে বর্তমানে জাতীয় দলের নিয়মিত ক্রিকেটার বনে যাওয়া মেহেদী হাসান মিরাজ বলছেন, ‘ এই জয়টা আমাদের ক্রিকেটের জন্য দরকার। আমাদের ক্রিকেটের ভবিষ্যতের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আশা করি যুবারা আমাদের দলকে অবশ্যই চ্যাম্পিয়ন করে নিয়ে আসবে বাংলাদেশে।’

অনূর্ধ্ব-১৯ বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা গত দুই বছর একটা গ্রুপ হয়ে খেলছে। সাফল্য ছিনিয়ে এনেছে দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধ কন্ডিশনেও। নির্দিষ্ট কয়েকজন ক্রিকেটার নয় বরং দলের প্রত্যেকেই কোন না কোনভাবে রাখেন দলের জয়ে অবদান। তিন বিভাগেই দল হিসেবে খেলে জুনিয়র টাইগাররা প্রতিপক্ষকে করেন ঘায়েল।

অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সফল অধিনায়কদের একজন মেহেদী হাসান মিরাজও প্রশংসা করেছেন অনুজদের তিন বিভাগেই ভালো খেলার। শিরোপা জিতেই দেশে ফিরবে রাকিবুল, শামীমরা প্রত্যাশা এই অলরাউন্ডারের, ‘আমার ভালো লেগেছে যেটা সেটা হচ্ছে ওদের তিনটা বিভাগই বেশ ভালো খেলছে। ব্যাটিং, বোলিং এবং ফিল্ডিং- যেটা আসলে খুব গুরুত্বপূর্ণ। আশা করি ওরা চ্যাম্পিয়ন হয়ে আসবে। এটাই আমার প্রত্যাশা। আমাদের দেশের সবার প্রত্যাশা যে ওরা চ্যাম্পিয়ন হয়ে আমাদের স্বপ্ন দেখাবে।’

‘অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ কখনোই শিরোপা জেতেনি। এই প্রথম বাংলাদেশ ফাইনালে খেলবে। আমার কাছে মনে হয় এটা একটা বড় পাওয়া, আমাদের দেশের মানুষের জন্য।’

জাতীয় দল কিংবা বয়সভিত্তিক, সাম্প্রতিক সময়ে ভারত যেন তাদের বড় প্রতিপক্ষ। বিশেষ করে ফাইনালে ভারত বাঁধা টপকাতে পারেনি মাহমুদউল্লাহ, মুশফিক কিংবা তরুণ আকবর, শরিফুলরা। এশিয়া কাপ কিংবা কোন ত্রিদেশীয় সিরিজ, ফাইনালে ভারতের কাছে হেরে রানার্সআপের শান্তনা নিয়েই ফিরতে হয়েছে টাইগারদের। তবে এবার নিজেদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারলেই যুবাদের সবচেয়ে বড় মঞ্চে সে বাঁধা টপকাতে পারবে আকবর আলির দল বিশ্বাস মিরাজের।

জাতীয় দলের এই অলরাউন্ডার বলেন, ‘ভারতের সাথে অনেক ক্লোজে গিয়ে আমরা বেশ কয়েকটি ম্যাচ হেরেছি। আমাদের দুর্ভাগ্য আসলে এরকম ম্যাচ। তবে কালকের দিনটা আমাদের করতে হবে, অবশ্যই আল্লাহ্‌ যদি রহম করে। অবশ্যই আমরা ভালো ক্রিকেট খেলব। ছেলেরা যেকরম খেলছে আশা করি ওরাও অনেক আত্মবিশ্বাসী। টিম ম্যানেজমেন্ট আছে। সবার অনেক আশা। প্রেশার না, এর আগের যতগুলো ম্যাচই খেলেছে, যেভাবে খেলেছে, একইরকম খেললে হয়তো আমরা ভারতকে হারাতে পারব।’

Check Also

হাটহাজারী উপজেলা চেয়ারম্যান গোল্ডকাপ ফুটবল লীগে ছিপাতলী ইউনিয়ন পরিষদ সেমি ফাইনালে

হাটহাজারী উপজেলা চেয়ারম্যান গোল্ডকাপ ফুটবল লীগে ছিপাতলী ইউনিয়ন পরিষদ সেমি ফাইনালে। সুমন পল্লব হাটহাজারী উপজেলা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *