Breaking News
Home / চট্টগ্রাম / ১৭ জন শ্রমিকের জায়গায় ৫০ জন শ্রমিক পরিবহন; সিয়াম সুপিরিয়র কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা।

১৭ জন শ্রমিকের জায়গায় ৫০ জন শ্রমিক পরিবহন; সিয়াম সুপিরিয়র কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা।

১৭ জন শ্রমিকের জায়গায় ৫০ জন শ্রমিক পরিবহন; সিয়াম সুপিরিয়র কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা।

কমল চক্রবর্তী-  সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে সীমিত আকারে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দিয়েছে। কিন্তু নগরীতে দেখা যাচ্ছে হাতে গোনা কয়েকটি ছাড়া সকল গণপরিবহনে মানা হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও শারীরিক দুরত্ব। সেই সাথে গার্মেন্টস গুলোও শ্রমিক পরিবহনের ক্ষেত্রে মানছেনা সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি। এর প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত করোনা ভাইরাস সংক্রমণ হার কমাতে জনসচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি না মানার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রেখেছে। এরই অংশ হিসাবে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অধিক শ্রমিক পরিবহনের দায়ে সিয়াম সুপিরিয়র লিমিটেড ফ্যাক্টরিকে পঞ্চাশ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমান আদালত।

আজ বুধবার ৩ জুন সকাল ১০ টা থেকে নগরীর বিভিন্ন স্থানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরীন আক্তার,নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরীর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরীন আক্তার নগরীর বাকলিয়া,সদরঘাট, ডবলমুরিং এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এসময় তিনি ৪ টি মামলায় ৫৪,৫০০ টাকা জরিমানা করেন।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিরীন আক্তার জানান,আজকের অভিযানে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ১৭ জন শ্রমিক পরিবহনের জায়গায় ৫০ জন শ্রমিক পরিবহন করার দায়ে সিয়াম সুপিরিয়র লিমিটেড ফ্যাক্টরিকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। সেইসাথে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি না মেনে গণপরিবহন চলাচল করায় ৩টি পরিবহন ড্রাইভার কে আরো ৪৫০০(চার হাজার পাঁচশত) টাকা জরিমানা করা হয়।

তিনি আরও জানান, এছাড়া বাকলিয়া,সদরঘাট, ডবলমুরিং এলাকায় সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে গণপরিবহন চলাচলের বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করা হয়েছে।

এদিকে নগরীর চকবাজার,পাচলাইশ,খুলশী,চাঁন্দগাও এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুক। তিনি জানান আজকের অভিযানে ৮ টি মোটরবাইক চালককে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় সর্বমোট ১৯০০ টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। পাশাপাশি বাস্থ্যবিধি মেনে ও শারীরিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য মাইকিং করে সবাইকে সতর্ক করা হয়।

এছাড়া নগরীর পাহাড়তলী, আকবরশাহ, বন্দর, পতেঙ্গা ও ইপিজেড থানাধীন বিভিন্ন জায়গায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধের উদ্দেশ্যে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী।
তিনি জানান, নগরীর অলঙ্কার মোড়ে বেশ কয়েকটি বাস কাউন্টারে দূরপাল্লার বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ ছিল। অভিযানে গিয়ে বিভিন্ন কাউন্টার তদারকি করি । কিন্তু এমন অভিযোগের সত্যতা পাইনি। এসময় বাস কাউন্টারের ম্যানেজারদের এ ব্যাপারে সতর্ক করা হয় যাতে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করে। যদি এর সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Check Also

মেজর সিনহা: চট্টগ্রামের রেঞ্জ ডিআইজি কক্সবাজারে

মেজর সিনহা: চট্টগ্রামের রেঞ্জ ডিআইজি কক্সবাজারে ইঞ্জিনিয়ার হাফিজুর রহমান খান: সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *