Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / করোনা যুদ্ধের ক্লান্তিহীন ভাবে মানব সেবা করে যাচ্ছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি।

করোনা যুদ্ধের ক্লান্তিহীন ভাবে মানব সেবা করে যাচ্ছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি।

করোনা যুদ্ধের ক্লান্তিহীন ভাবে মানব সেবা করে যাচ্ছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি। জীবে প্রেম করে যেই জন, সেই জন সেবিছে ঈশ্বর’ স্বামী বিবেকানন্দের এই বাণী নানা সময়ে নানান মানুষের মধ্যে প্রতিফলিত হতে দেখেছি আমরা। তবে বিশাল এ পৃথিবীতে এই মানুষগুলোর সংখ্যা একেবারেই যৎসামান্য। মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য’ এই দায়িত্ববোধ থেকেই করোনার সংকটময় মুহূর্তে তিনি ক্লান্তিহীনভাবে সকাল-সন্ধ্যা ছুঁটে বেড়াচ্ছেন ক্ষুধার্ত মানুষের খোঁজে। দাঁড়াচ্ছেন পাশে, দিচ্ছে নানা সহায়তা, জোগাচ্ছেন সাহস আর প্রেরণা। দেশে এবং প্রবাসে মহামারি করোনা সনাক্ত হওয়ার পরপরই জনসচেতনতায় তৎপর হন এই মানব সেবক।তিনি নিজের জীবনের সম্পদ ও মায়া ত্যাগ করে শুধু দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে মহামারী ক্রান্তিকালে বিভিন্ন মহতি উদ্যোগে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন ।
সম্প্রতিকালে ত্রাণ বিতরণে অনেকে যেখানে অনিয়মে জড়িয়ে পড়েছেন সেখানে তিনি অন্যান্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। দেখিয়ে দিয়েছেন- তিনি শাসন নয়, জনগণের সেবক হতে হয় কি করে।সংকটকালীন মুহূর্তে খাদ্যসহায়তা ছাড়াও তিনি অসুস্থ মানুষগুলোর জন্য বাড়িয়েছেন সাহায্যের হাত। ইতিমধ্যে তিনি দেশে এবং প্রবাসে অসহায়দের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অনেককে নগদ অর্থসহায়তাও প্রদান করেছেন। এই দুঃসময়ে সর্বদা তাদের পাশে থাকার প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেছেন তিনি। তার পথচলার বড় অনুপ্রেরণা। মানবতার কল্যাণ একটি মানবিক সমাজ বিনির্মানে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাচ্ছেন দীর্ঘদিন।

পৃথিবীতে এমন মানবিক মানুষগুলি আছে বলেই আহাজারি পৃথিবীটা এখনও বাঁচার স্বপ্ন দেখে। হৃদয়হীনা দরিয়ায় ভালোবাসার মেলবন্ধন তৈরি করা এক মানব সেবকের অনন্য উপখ্যান। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করেছে। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে। সবাই আতঙ্কিত ও শঙ্কিত। এটা এমনই এক ভাইরাস যে কেউ আক্রান্ত হলে বা মারা গেলে তার পাশে কেউ যাচ্ছে না। অত্যন্ত কাছের মানুষও পর হয়ে যাচ্ছে। অনেকটা চাচা আপন প্রাণ বাঁচা। সমগ্র বাংলাদেশ করোনা ভাইরাসে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে। এই দুর্যোগকালীন সময়ে লকডাউনের জন্য অনেকে বাড়ির বাইরে যেতে পারছেন না। খেটে খাওয়া দিনমজুর ও অনেক মধ্যবৃত্ত মানুষও খুব কষ্টের মধ্যে দিয়ে অর্ধাহারে বা অনাহারে দিন অতিবাহিত করছে। এসব অর্ধাহারে বা অনাহারে দিন অতিবাহিত করা মানুষের জন্য লোকজনকে বলে খাবারের ব্যবস্থা করা, বাড়িতে বাড়িতে খাদ্য পৌঁছে দেয়া, মসজিদের ইমাম ও পুরোহিতদের জন্য নগদ অর্থ সহায়তা অসুস্থ ব্যক্তিদের চিকিৎসা সহায়তা ব্যবস্থা করা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে সহযোগিতা করা, করোনায় মানুষকে সচেতন করে লিফলেট বিতরণ, বিনামূল্যে গরিব মানুষের মাঝে মাক্স বিতরণ, মসজিদসহ বিভিন্নস্থান অপরিস্কার স্থান ব্লিচিং পাউডার দিয়ে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা, মসজিদে মসজিদে হাত ধোয়ার জন্য সাবান দেয়া, লকডাউনে মানুষকে ঘরে থাকতে সচেতন করা নিজের জীবন বাজি রেখে এমন অনেক কাজ নি:স্বার্থভাবে করে যাচ্ছেন বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার মিরসরাই উপজেলার কৃতি সন্তান বিশিষ্ট শিল্পপতি মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি।
শুধু করোনা ভাইরাসের সময় নয়;তার যাপিত জীবন থেকেই নি:স্বার্থভাবে নিরবে মানুষের সেবা করে আসছেন তিনি। অনেকটা মানুষের উপকার বা সেবা করাই তাঁর ধ্যানজ্ঞান। মানবসেবার পাশাপাশি এলাকার বেকার যুবকদের নিয়ে গড়ে তুলেছেন এক ব্যতিক্রমধর্মী বিভিন্ন গ্রামীণ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান। এতে গ্রামের বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের পাশাপাশি দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রাখছেন। রোজার সময় মসজিদে ইফতারির ব্যবস্থা, মাদ্রসায় গরিব এতিম ছাত্রদের পড়াশোনার শিক্ষা সামগ্রী পোশাক ও কোরআন শরীফ বিতরণ করেন।। বিভিন্ন জাতীয় দিবসে পালনে বিভিন্ন সংগঠন কে সহযোগিতা তৃষ্ণার্ত মানুষকে পানি পান করানো এবং কখনও ফুল দিয়ে বরণ করেন। ঈদের আগে এতিম শিশুদের পোশাক কিনে দেন, শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বা শীতের পোশাক বিতরণ করেন। ঘূর্ণিঝড় ফণি, বুলবুলসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানুষকে নিরাপদস্থানে যেতে সহযোগিতা করেন। যে কোন বিপদে আপদে ঝাঁপিয়ে পড়েন সবার আগে। তার মধ্যে নেই কোন অহংকার। অনেক অসহায় মানুষের আস্থার শেষ ঠিকানা ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি।
এলাকার অসহায় গরিব মানুষের ক্যান্সার, ব্রেন টিউমার, প্যারালাইসিস, এক্সিডেন্টে বড় করণের কোন ক্ষতি হলে তাদের প্রয়োজনে সুদূর দূরবর্তী তে স্পেশালিস্ট হাসপাতালে রুগিকে নিয়ে যান। অত্যন্ত সৎ ও সাদা মনের মানুষ ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি এই মহৎ কাজের জন্য দেশ বিদেশের অনেক প্রবাসী তার মাধ্যমে সহযোগিতা পেয়ে থাকেন।। সমাজের মানুষের জন্য নিরলসভাবে স্বেচ্ছায় যে অক্লান্ত শ্রম ও সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তা সত্যিই প্রশংসনীয়। অসহায় মানুষের পাশে থেকে তাদের জন্য কিছু করতে পারলে আনন্দ খুঁজে পান তিনি। এলাকার অনেক বেকার যুবকদের আদর্শ এখন তিনি। ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি মত নি:স্বার্থ পরোপকারী উদ্যোমী নানুষের দেশেএবং প্রবাসে খুব প্রয়োজন। তিনি আজ দেশবাসীর কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় মুখ । তিনি ক্লান্তিহীন ভাবে কাজ করে মানুষের মাঝে আস্থা, ভরসা আর ভালোবাসার একটি জায়গা তৈরি করে নিয়েছেন। তাই তিনি আজ শুধু দেশেই নয় প্রবাসেও একজন অত্যন্ত পরিচিত মুখ । মহান আল্লাহর প্রতি প্রার্থনা করি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি এর মানবিক কাজগুলো কবুল করুন। মহান আল্লাহতালা উনাকে আরো সমৃদ্ধি দান করুন দেশ ও দশের সেবা করার তৌহফিক দান করুন। দেশ এবং প্রবাসের সকলের পক্ষ থেকে এই মহান ক্লান্তিহীন মানবতার সেবক করোনা যোদ্ধাকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা ।

গ্রন্থনায়,
মুহাম্মদ মুসা

Check Also

সৌদি আরবে অস্থানরত সকল বাংলাদেশি রাজনৈতিক,অরাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন ও সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিচ্ছেন তাদের উদ্যেশ্যে বাংলাদেশ দূতাবাস’র জরুরি বিজ্ঞপ্তি

সৌদি আরবে অস্থানরত সকল বাংলাদেশি রাজনৈতিক,অরাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন ও সাংবাদিক হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিচ্ছেন তাদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *