Breaking News
Home / এক্সক্লুসিভ / ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরে সর্ষে ভূত! সরকারের নীতিনির্ধারকদের হস্তক্ষেপ কামনা করছি-ফখরুদ্দীন বাবলু

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরে সর্ষে ভূত! সরকারের নীতিনির্ধারকদের হস্তক্ষেপ কামনা করছি-ফখরুদ্দীন বাবলু

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরে সর্ষে ভূত! সরকারের নীতিনির্ধারকদের হস্তক্ষেপ কামনা করছি-ফখরুদ্দীন বাবলু

বার্তা ডেস্কঃ

স্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগে ঠিকাদারী লাইসেন্স ও আমার এক পরিচিত
লোকের একটা কাজে যাতায়াতের সূবাদে যা দেখলাম তা অকল্পনীয়+
১) বেশীরভাগ কর্মকর্তা, কর্মচারী প্রকাশ্যে দূর্নীতি করে,
২) বিএনপি জামায়াতের চাকুরীজীবি
দের নিয়ন্ত্রনে পূরো প্রশাসন!
৩) বেশীরভাগ চাকুরীজীবি আওয়ামী লীগ সমর্থক লোকজনের পরিচয় জানলেই ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করতে দ্বিধা করে না এবং আমি নিজে ভূক্তভোগী।
৪) ঔষধ কোম্পানীর লোকজন এবং ফার্মেসীতে হানা দিয়ে অবৈধভাবে টু
পাইস টাকা ইনকাম করে প্রতিদিন প্রকাশ্যেই এবং অফিস শেষে ভাগাভাগি করে।
এবার দৃষ্টি দিতে চাই জনৈক তাজুল
কর্তৃক ৫০,০০০ হাজার পিচ মাস্ক সরবরাহের কার্যাদেশ প্রদান পরবর্তী
কার্যক্রম –
১) তাজুল কার্যাদেশপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানের মালিক নয়, এটা জানানো হওয়ার পরে
আমদানীর পরের দায়দায়িত্ব নিয়ে মালিকের মতামত নেয়া দরকার ছিল?
২) কার্যাদেশ পাওয়ার পরে সরবরাহকারী স্যাম্পল জমা দেয় এবং রাত আটটায় অফিস থেকে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে ফোনে জানানো হয় এবং উনি স্যাম্পল না দেখে ফোনে মৌখিক অনুমতি দিয়ে দেন ( হয়ত আর্থিক
লেনদেনের বিষয় জডিত ছিল)।এক্ষেত্রে
ডেইলিস্টারের সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে দায়িত্বশীল কর্মকর্তা করোনা পরিস্থিতির অজুহাত দেখানএবং পরের দিন অনাপত্তিপত্র প্রদান করেন।
২) কার্যাদেশের শর্তে free sale certificate উৎপাদনকারী দেশের রেগুলেটরী কর্তৃপক্ষ দেয়ার কথা উল্লেখ থাকা সত্বেও উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান নিজে এটা প্রদান করে এবং ঔষধ প্রশাসন কর্তৃপক্ষ আপত্তি করেনি।
৩) কার্যাদেশের শর্তে ISO 13485 certificate ও certificate of analysis বাধ্যতামূলক এবং উৎপাদনকারী চায়নার কোম্পানী টেম্পারিংকরলে এটা পরীক্ষা করার দায়িত্ব ঔষধ প্রশাসন কর্তৃপক্ষের?
পরিশেষে দোষ পড়ল কার্যাদেশপ্রাপ্ত
আমদানি লাইসেন্সধারী কোম্পানী এলান কর্পোরশন এবং অঙ্গীকার নামা দিয়ে লাইসেন্স ব্যবহারকারী জনৈক তাজুল আর তার গাডীর ড্রাইভারের উপর।

অপরাধ করছে তাজুল ও রপ্তানীকারক প্রতিষ্ঠান।
জনাব আমিনুল ইসলাম আমিনের অপরাধ – উনি আওয়ামী লীগের দায়িত্ব পূর্ণ পদে আছেন,ব্যাপারটা অনেকটা পদ্মাসেতু নিয়ে দেশবিরোধী নটের গুরুদের সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে সাজানো গল্পের মত,অথচ পরবর্তীতে জনাব আবুল হোসেনের কোন দোষ পাওয়া যায়নি।
আওয়ামী লীগের লোকেদের ব্যবসা করা
কি অপরাধ? কৈ ট্রেড লাইসেন্স নেয়ার সময়তো দলীয় পরিচয় জানানো বাধ্যতামূলক নয়!
জনৈক তাজুলের ড্রাইভারের অপরাধ
আদালতে প্রমাণ হবে কিনা সেটা ও প্রশ্ন!
জেএমআই শর্ত ভঙ্গকরে দেশে তৈরী মাক্স সরবরাহ করলে ও শুধুমাত্র শোকজ করা হয়েছে, কিন্তু মামলা করা হয়নি।এখানে জেএমআই এর মালিক জনাব রাজ্জাক জামায়াত ঘরাণার এবং বিভিন্ন সময়ে জায়গামত টাকা পয়সা খরচ করতে দ্বিধা করে না?
ঔষধ প্রশাসন অধিদফতর নিজেদের দোষ ডাকতে এসব নাটক আর সাজানো গল্প না সাজিয়ে এলান কর্পোরেশনের মালিককে জিজ্ঞাসা
করে প্রকৃত অপরাধী জনৈক তাজুল ও
রপ্তানীকারক চায়নার কোম্পানীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারতেন।
শোনা যায়,দরপত্রে অংশগ্রহণকারী
অবশিষ্ট ঠিকাদারদের মধ্যে বিরোধী
দলীয় কিছু ঠিকাদার ঔষধ প্রশাসনের দায়িত্বশীলদের উস্কানি দিয়েছেন এক্ষেত্রে।
পরিশেষে সরকারের নীতিনির্ধারক
মহলে অতি উৎসাহী এবং কুচক্রি
আমলাদের বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রাখার বিনীত আরজ রইল।

 

লেখকঃ ফখরুদ্দীন বাবলু, ৮০ ও ৯০ দশকের ছাত্রনেতা

Check Also

স্বাস্থ্য খাতের দুর্নীতি আর বিশিষ্ট লোকের মৃত্যু দেশের অপুরনীয় ক্ষতি -তসলিম উদ্দিন রানা।

স্বাস্থ্য খাতের দুর্নীতি আর বিশিষ্ট লোকের মৃত্যু দেশের অপুরনীয় ক্ষতি -তসলিম উদ্দিন রানা। উপসম্পাদকীয়ঃ করোনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *