Breaking News
Home / জাতীয় / ২০২০ – ২০২১ অর্থ বৎসরের বাজেট আয়কর সংক্রান্ত কিছু প্রস্তাবনা এড: মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম

২০২০ – ২০২১ অর্থ বৎসরের বাজেট আয়কর সংক্রান্ত কিছু প্রস্তাবনা এড: মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম

২০২০ – ২০২১ অর্থ বৎসরের বাজেট
আয়কর সংক্রান্ত কিছু প্রস্তাবনা
এড: মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম

মাননীয় অর্থমন্ত্রী প্রতি বৎসরের ন্যায় মহান জাতীয় সংসদে ২০২০- ২০২১ অর্থ বৎসরের বাজেট পেশ করেছেন এবং সাথে সাথে সংশ্লিষ্ট অর্থ বৎসরের অর্থ বিলও সংসদে পেশ করেছেন। অর্থবিলে আয়কর অংশে যে সমস্ত পরিবর্তন এনেছেন তার ভেতর অনেকগুলো পরিবর্তন প্রশংসনীয় হলেও কতিপয় বিষয়ে নজর দেওয়া প্রয়োজন।

(১) ধারা ৮২ বিধি( ৭) (এ)ঃ
সার্বজনীন স্বনির্ধারনী পদ্ধতিতে আয়কর রিটার্ণ দাখিল করা হলে পুর্ববর্তী বৎসরের তুলনায় ১৫% এর অধিক আয়কর প্রদর্শন করলে উহা অডিটের জন্য বিবেচনা করা হবেনা। যেহেতু এই বৎসরে করোনা ভাইরাসের কারণে করদাতাগণ তাহাদের ব্যবসায় বাণিজ্য চালাতে পারেনি সেেেত্র এটি ১০% করা হলে অধিক যুক্তিযুক্ত হবে।

(২) ধারা ৩০ এমঃ
এ ধারার বিধানমতে ৫০,০০০/ (পঞ্চাশ হাজার) টাকার উর্ধ্বে লেনদেনের েেত্র রেখাঞ্চিত চেক বা ব্যাংকযোগে লেনদেন করতে হবে। চলতি অর্থ বৎসরে করোনা ভাইরাসের কারণে চেকের মাধ্যমে বা ব্যাংকের মাধ্যমে অনেক লেনদেন করা সম্ভব হয়নি। তাই এ বিধানটি প্রত্যাহার প্রয়োজনীয়।

৩) বাড়ী ভাড়া ব্যাংক হিসেবে জমা করন :
ভাড়া গ্রহীতার ক্ষেত্রে কোন মাসে তাহার প্রাপ্ত ভাড়া ২৫,০০০/- টাকার অধিক হলে ব্যাংক হিসেবে জমা করা বাধ্যতামূলক নতুবা তাহার সংশ্লিষ্ট বৎসরের আয়করের ৫০% জরিমানা করা হবে এই বিধানটি প্রত্যাহার করা প্রয়োজন।

৪) ধারা ১৯ এএএএ :
শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করলে ১০% ট্যাক্স প্রদান সাপেক্ষে উক্ত বিনিয়োগ সম্পর্কে কোন প্রকার প্রশ্ন উত্থাপন করা হবে না। কিন্তু শর্ত হলো উক্ত বিনিয়োগ ৩ বৎসরের ভিতরে প্রত্যাহার করা যাবে না। এক্ষেত্রে ৩ বৎসরের জায়গায় ২ বৎসর করা হলে করদাতাগণ অধিক উৎসাহিত হবেন।
আমাদের দেশে প্রতি বৎসর বিপুল পরিমাণ অর্থ বিদেশে চলে যায় তাই শুধু শেয়ার বাজার সঞ্চয় পত্র জায়গা জমি, বিল্ডিং এ্যাপার্টমেন্টের বাহিরে ও উৎপাদনশীল যে কোন শিল্প প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগকে অন্তর্ভূক্ত করলে অধিক কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। সাথে সাথে কাহারো নিকট কালো টাকা পাওয়া গেলে কঠোর শাস্তির বিধান করতে হবে।

৫) ঙহষরহব রিটার্ন জমা দেওয়া প্রসঙ্গে :
আয়কর রিটার্ন জমা করনের ক্ষেত্রে ঙহষরহব জবঃঁৎহ ঝঁনসরঃ কে উৎসাহিত করা হয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের অংশ হিসেবে আমরা এ পদ্ধতির বিরোধী নহি। কিন্তু সারাদেশে ২৪,০০০ আয়কর আইনজীবীর স্বার্থ এখানে উপেক্ষা করা হয়েছে। বিগত কয়েক বৎসর ধরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাছে আমরা ঙহষরহব জবঃঁৎহ দাখিলের জন্য চধংংড়িৎফ চেয়ে আসছি। কিন্তু জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সেদিকে কর্ণপাত না করে ঢালাও ভাবে ঙহষরহব জবঃঁৎহ দাখিল করার কথা বলেছেন, এক্ষেত্রে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হবে। তাই অবিলম্বে সকল আয়কর আইনজীবীকে ঙহষরহব জবঃঁৎহ দাখিলের জন্য চধংংড়িৎফ দেওয়া হোক।

লেখকঃ
এডঃ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম
অ্যাডভোকেট, সুপ্রিমকোর্ট অব বাংলাদেশ ( হাইকোর্ট বিভাগ)
আয়কর ও কোম্পানী উপদেষ্ঠা।
সাবেক য্গ্নু সম্পাদক,
চট্টগ্রাম কর আইনজীবী সমিতি।

Check Also

দেশ বরণ্যে বুদ্ধিজীবী ও সাংবাদিক কামাল লোহানী আর নেই

দেশ বরণ্যে বুদ্ধিজীবী ও সাংবাদিক কামাল লোহানী আর নেই নিউজ ডেস্কঃ দেশ বরণ্যে সাংবাদিক,লেখক, বুদ্ধিজীবী,শিক্ষাবিদ, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *