Breaking News
Home / পাঁচমিশালি / সত্যিকারের আদর্শিক ও বঙ্গবন্ধু প্রেমিকদের অবস্থা অত্যন্ত করুন তার প্রমাণ নওগাঁর আব্দুস সালাম মন্ডল -তসলিম উদ্দিন রানা

সত্যিকারের আদর্শিক ও বঙ্গবন্ধু প্রেমিকদের অবস্থা অত্যন্ত করুন তার প্রমাণ নওগাঁর আব্দুস সালাম মন্ডল -তসলিম উদ্দিন রানা

সত্যিকারের আদর্শিক ও বঙ্গবন্ধু প্রেমিকদের অবস্থা অত্যন্ত করুন তার প্রমাণ নওগাঁর আব্দুস সালাম মন্ডল -তসলিম উদ্দিন রানা

নওগাঁ সাপাহার উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক চা বিক্রেতা আব্দুস সালাম মন্ডল এর মত আওয়ামী লীগকে শুধুই দিয়েছেন এমন নেতা কর্মীর সংখ্যাও নেহাত কম নয়।দলের নিবেদিত কর্মী হিসাবে দেওয়া হল তাদের কাজ।তারা ক্ষমতায় থেকেও দল থেকে কানাকড়ি নেয়নি।

আব্দুস সামাদ মন্ডল ১৯৭১ সালে মাত্র ১১ বছর বয়সে মহান মুক্তিযুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের বিভিন্ন ভাবে সহযোগীতা করেছেন।
পরবর্তী সময়ে তিনি ১৯৮০ সালে এইচএসসি পাশ করেন,১৯৯৬ সাল থেকে নওগাঁ সাপাহার উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক হিসেবে প্রায় ১০/১২ বছর নিষ্ঠা ও সততার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

দল ক্ষমতায় আসলেও তার কোন পরিবর্তন হয়নি কারণ সে ধান্ধাবাজী,দালালী, নেতার বাড়ির হাজিরা,এমপি-মন্ত্রীদের তোয়াজ,তেলবাজি, চামচামি করতে পারিনি বলে তার এই দুরাবস্থা।
না পাওয়ার বেদনা ও হতাশা তার মধ্যে নেই। আগের মত দলের কার্যলয়ে নিয়মিত যায়।
রাজনীতি তার পেশা নয় শুধু নেশা বলে দলীয় কার্যলয়ে আগের মত যাওয়া আসা করে কিন্তু ক্ষমতা কি জিনিস সে জানে না।
সে সত্যিকারের আদর্শিক।তার সম্বল হল বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি করে যাওয়া আর মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাওয়া।সাধারণ ভাবে জীবন যাপন করছে সেটা তার সাত্ত্বনা।কাউকে কিছু বলেনা কারো কাছে তদবির নিয়ে যায়না।নিরবে নিভৃতে দলের নিবেদিত কর্মী হিসাবে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে তার পদবীও নাই কারণ তার টাকা বা লবিং নাই।

বর্তমানে তার আর্থিক অবস্থা অসচ্ছল হওয়ার ফলে প্রতিদিন দুইটি চায়ের ফ্লাক্স হাতে নিয়ে ফেরি করে চা বিক্রি করেন। তাতে তার আয় প্রতিদিন ৩/৪ শ টাকা হয় তা দিয়ে অভাবের সংসার চালান।
যা দিয়ে বর্তমান সময়ে সংসার চালানো প্রায় দুষ্কর হলেও তার কাছে নিজের ইনকাম ভালো লাগে,কারো হাতে হাত পাতেনা।নিজেকে নিয়ে ভাবেনা শুধু দলের জন্য কাজ করে যায়।এতবছর দল ক্ষমতায় হলেও সামাল মন্ডল যে লাউ সে কদু হিসাবে আছে।

সব কিছুর পরেও এখন ডেইলী দুই ঘন্টা পাটি অফিসে সময় দেন এটাই আওয়ামী লীগের প্রতি প্রেম ও বঙ্গবন্ধুর প্রতি ভালবাসা।এদলের জন্য প্রতিদিন নিজ পকেট থেকে যে টাকা খরচ করে যাচ্ছে তার হিসাব করলে কত হবে তা ভাবলে কষ্ট লাগবে।কেননা তারা শুধু দলের জন্য দিতে এসেছে নেওয়ার জন্য আসিনি।

প্রিয় নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কথা অতীব বাস্তব টানা তিন বার আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায়,অনেকের অনেক কিছু হয়েছে,কিন্তু আমার সেই দুর্দিনের কর্মীদের অবস্থা একই আছে।
সত্যি কথা এটাও বাস্তবতা। আমাদের দুঃসময়ের আদর্শিক ও ত্যাগী কর্মীরা আজ বড়ই অসহায়।তারা আব্দুস সালাম মন্ডলের মত সাধারণ জীবন যাপন করছে আর অনেকে দলীয় এমপি -মন্ত্রীর রোষানলে পড়ে বড়ই নিষ্ঠুরতা পার করছে।যা অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা।

 

লেখকঃ তসলিম উদ্দিন রানা, সাবেক ছাত্রনেতা

Check Also

আমার চাওয়া আধ্যাপক জেবুননাহার উপদেষ্টা, জাতীয় কবিতা মঞ্চ, সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় কমিটি।

আমার চাওয়া আধ্যাপক জেবুননাহার উপদেষ্টা, জাতীয় কবিতা মঞ্চ, সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় কমিটি। আরেকটি ঈদ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *