Breaking News
Home / বিনোদন / সাক্ষাৎকারঃ আমার সফলতার প্রেরণা ছিল আমার মা – কোহিনুর শাকি

সাক্ষাৎকারঃ আমার সফলতার প্রেরণা ছিল আমার মা – কোহিনুর শাকি

সাক্ষাৎকারঃ
আমার সফলতার প্রেরণা ছিল আমার মা – কোহিনুর শাকি

কোহিনুর শাকি দেশের সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের পরিচিত মুখ। শৈশব থেকেই সাহিত্যর সব শাখার বিচরণ। তিনি বাংলাদেশ বেতারের চট্টগ্রাম কেন্দ্রের তালিকাভুক্ত অনুষ্ঠান ঘোষিকা,এ গ্রেডের নৃত্য শিল্পী ও বি গ্রেডের নাট্যকার এবং বাংলা সংবাদ পাঠিকা। তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রর বাংলা সংবাদ পাঠিকা ও বিভিন্ন অনুষ্ঠানের গ্রন্থনা,গীতিকার, উপস্থাপক ও সংগীত পরিচালক। তার রচিত নাটক বাংলাদেশ বেতারের সবকটি কেন্দ্রে প্রচারিত হয়। তিনি চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক অনুবীক্ষন পত্রিকা সহ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। এবং মাসিক সাস্থ্যচিন্তার প্রতিবেদক ছিলেন দীর্ঘদিন যাবৎ। তাছাড়া তিনি ঢাকা থেকে প্রকাশিত একাধিক পত্রিকার রিপোর্টার ছিলেন। তিনি শ্যামা নিকেতন নামে সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন থেকে নৃত্য পুরষ্কার লাভ করেন। কোহিনুর শাকির জন্ম ৪ই মে চট্টগ্রাম জেলার চন্দনাইশ উপজেলায়। বর্তমানে তিনি সোস্যল ইসলামী ব্যাংক হালিশহর শাখায় এসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট ও অপারেশন ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। সফল এই নারী নানামুখী সামাজিক ও জনহিতকর কাজে নিজেকে সংপৃক্ত রেখেছেন। কোহিনুর শাকি’র সাক্ষাৎকার নিয়েছেন এম.এইচ সোহেল।

#দেশবার্তাঃ আপনি একজন সফল নারী। আপনার সফলতার পিছনে মুখ্য ভূমিকা কি ছিল?
কোহিনুর শাকিঃ সফলতার বিষয়টি একেকজনের কাছে একেকরকম। অামার অনুপ্রেরণা ছিল আমার ‘মা’ ছোট বেলায় নাচের জন্য নৃত্য গুরু রুনু বিশ্বাস এর কাছে নেয়া,বিভিন্ন ফাংশন এ অংশ নেয়া, পুরষ্কার নেয়া, ভালো কোন কাজে উদ্যোগ নেয়া সবই অামার মায়ের অবদান। অার তো ছিলই পরম করুনাময়ের অসীম দয়া। এক জীবনে একজন নারী হিসেবে অনেক ভালোবাসা, সহায়তা পেয়েছি জীবন সংঙ্গীর কাছ থেকে। অামার পরিশ্রম, অামার নীতি, সততা, আন্তরিকতা,অার মানুষের প্রতি সহজ সরল বিশ্বস্ত তা অামাকে অনেক সাইডে সফলতার নিয়ামক হিসাবে কাজ করেছে।
#দেশবার্তাঃ আপনি একইসাথে ব্যাংকার,সংবাদ পাঠক, লেখক,উপস্থাপক সবকিছু সমন্বয় কিভাবে করেন?
কোহিনুর শাকিঃ যে পারে তার কাছে কোন কাজই কঠিন না। অামি নেশা সংবাদ পাঠ, নাটক লেখা, গান লেখা, অার পেশায় একজন ব্যাংকার হিসেবে ২০টি বছর পার হয়েছে। সবই অামার আল্লাহর অপার মহিমা অার অামার পরিবারের সহযোগিতায় সম্ভব হয়েছে। অামাদের সমাজে অনেক নারিরই বহুমুখী গুণ রয়েছে শুধু সুযোগের অভাবে বিকশিত হতে পারে না। অামি সুযোগ পেয়েছি তাই এতটুকু এগিয়ে যেতে পেরেছি। অামি চাই শত বাঁধা পেরিয়ে নারীরা এগিয়ে যাক তাতে অামাদের সমাজটা, দেশটা অারও সমৃদ্ধশালী হবে।
#দেশবার্তাঃ আপনি একজন লেখালেখি জীবন সর্ম্পকে বলুন?
কোহিনুর শাকিঃ শৈশব থেকেই অামার লেখালেখির প্রতি ঝোঁক ছিল। বিশেষ করে ছোট গল্পে র প্রতি। বিভিন্ন দৈনিক, সাময়িকী তে লিখা ছাপানো হতো। এরপর বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা ঘুরে বেড়ানোর ভ্রমণ কাহিনী সাপ্তাহিক চট্টলা পত্রিকাতে ধারাবাহিক ভাবে ছাপানো হয়েছে। তারপর কবিতার দিকে মন দিই। বিভিন্ন পত্রিকাতে নিয়মিত লিখতে থাকি। ৯৩ সালের দিকে দৈনিক ঈশান পত্রিকায় যোগ দিই।পরের বছর সাপ্তাহিক অণুবীক্ষণ ও মাসিক সাস্থ্যচিন্তা ম্যাগাজিনে যোগদান করি।সাংবাদিকতার ধারাবাহিকতায় পরে ঢাকার মাসিক অনন্যা ও বান্ধবী পত্রিকার চট্টগ্রাম ব্যুরো হিসেবে দায়িত্ব পালন করি। এরই ফাঁকে চলে বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতারের চট্টগ্রাম এ নিয়মিত বাংলা সংবাদ পাঠ, অনুষ্ঠান ঘোষণা, নাটক লিখা গান লিখা,নাটক করা। ২০০০সালে চট্টগ্রাম বেতারে অধিবেশন তত্তবধায়ক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করি। এরই মাঝে ব্যাংকে চাকরি হয়।ব্যস ডেবিট কেডিট এর ঝামেলার কারনে লেখা তে কিছুটা ঘাটতি হলেও ২০০৮ সালে অামার কবিতার বই ‘ছুঁয়ে যায় অন্তর’ প্রকাশিত হয়। এখনও লেখা লেখি চলছে।
#দেশবার্তাঃ আপনি একজন সংগঠক কোন কোন সংগঠনের সাথে জড়িত?
কোহিনুর শাকিঃ চট্টগ্রাম এ ২০/২২ টি সংগঠন এর কমিটির অন্যতম সদস্য অামি। কেউ অামার মিডিয়া কে বেইস করে কেউবা অথনৈতিক বিষয়ে ব্যাংকের কথা বিবেচনা করে। কমকর্তা হিসেবে অামি মিটিং, অনুষ্ঠান অায়োজন,ডোনেশন, উপস্থাপনার জন্য অামার পারফরম্যান্স অত্যনত গুরুত্বপূর্ণ থাকে। তবে সমমনা কমকর্তা না থাকলে সে সংগঠন ঠিকে থাকা খুব কঠিন হয়ে পড়ে। সমালোচনাকারীরও অভাব হয় না। এখন যেহেতু অামি একটা শাখার অপারেশন ম্যানেজার সেহেতু সব সংগঠন এ নিয়মিত যাওয়া সম্ভব হয় না। তবে সব সংগঠন এর জন্য অামার আন্তরিকতা অভাব নাই।
#দেশবার্তাঃ আপনি একজন জনপ্রিয় উপস্থাপক। জনপ্রিয়তা কিভাবে অর্জন করলেন?
কোহিনু শাকিঃ একটি অনুষ্ঠানের সার্বিক সাফল্য নিভর করে একজন সাবলীল উপস্থাপকের উপর। সুন্দর বাচনভঙ্গি, সুললিত কন্ঠ স্বর, সহজবোধ্য কথামালা,এবং অন্যদের মাঝে নিজেকে দৃষ্টি নন্দন ভাবে তুলে ধরতে পারলেই একজন ভালো উপস্থাপক হওয়া যায়। অযতা বাকবিতন্ডায় কিংবা অপ্রাসঙ্গিক বিষয়ের অবতারণা অনেক সময় অনুষ্ঠানের মান খুনন হতে পারে। মানসম্মত বিষয়ের দিকে সব ভালো উপস্থাপকের দৃষ্টি রাখা উচিত অামি এ বিষয় গুলো ফলো করি এবং খুব কম সংখ্যক অনুষ্ঠান উপস্থাপন করি। খুব বেশি জন প্রিয় অামি নই তবে চট্টগ্রামবাসির অনেকেই অামাকে চেনে। শুকরিয়া।

Check Also

মহাকবি মাইকেল মধুসুদন দত্ত স্মরণে অনলাইনে সাহিত্য সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত

মহাকবি মাইকেল মধুসুদন দত্ত স্মরণে অনলাইনে সাহিত্য সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত বিনোদন বার্তাঃ চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের উদ্যোগে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *