1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News Editor : News Editor
খাগড়াছড়িতে সহকারী শিক্ষা অফিসারের ঘুষিতে রক্তাক্ত নারী শিক্ষক - DeshBarta
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
প্রিন্সিপাল আমিনুর রহমানের ইন্তেকাল বাচার পরিবারের পাশে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, ৫ লাখ টাকার অনুদান দিলেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন কৃষকের ঘরে ঘরে এখন ধান কেটে ঘরে তোলার আনন্দ বোয়ালখালীতে প্রবাসীর স্ত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থানে অধিকারী হলেন মোঃ তুহিন ইসলাম এস আলম গ্রুপের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত চক্রান্ত খতিয়ে দেখতে সরকার ও দুদকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি মাওলানা ফখরুল ইসলাম ছাহেবের মৃত্যুতে হাফিজ মাছুম আহমদ দুধরচকীর শোক প্রকাশ রাশিয়ার নিষিদ্ধ সংগঠনের তালিকায় যুক্ত হলো মেটা অনন্যাকে নিয়ে মুখ খুললেন বাবা চাঙ্কি পান্ডে বিশ্বের সবচেয়ে সরু বহুতল৷ যার উচ্চতা ১৪২৮ ফুট

খাগড়াছড়িতে সহকারী শিক্ষা অফিসারের ঘুষিতে রক্তাক্ত নারী শিক্ষক

  • সময় বুধবার, ১৭ আগস্ট, ২০২২
  • ৩৯ পঠিত

প্রতিনিধি, খাগড়াছড়ি :

খাগড়াছড়িতে সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার সুভায়ন খীসার বিরুদ্ধে এক নারী প্রধান শিক্ষককে মেরে রক্তাক্ত করার অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (১৬ আগষ্ট) সকালের দিকে সুভায়ন খীসার কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহত প্রধান শিক্ষক মৌসুমী ত্রিপুরা খাগড়াছড়ি সদও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তিনি খাগড়াছড়ি জেলা সদরের মহালছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন।

মৌসুমী ত্রিপুরা অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের বাউন্ডারী দেয়ালের গেইট নড়বড়ে অবস্থায় আছে। বিষয়টি লিখিতভাবে জানানোর জন্য সহকারী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সুভায়ন খীসার অফিসে গেলে ক্ষোভ দেখিয়ে তেড়ে এসে আমার গায়ে হাত তোলেন। তাঁর কিল ঘুষিতে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে অজ্ঞান হয়ে গেলে পরে অফিসের অন্যরা আমাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। আহত শিক্ষকের মুখে ও চোখে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

খাগড়াছড়ি আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. মিথিলা বড়ুয়া বলেন, তাঁর বা চোখের নিচে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। সেখানে দুটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। অবজারভেশনে রাখতে তাকে ভর্তি নিয়ে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে।

অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষা অফিসার সুপায়ন খীসা বলেন, আমি তাঁকে (শিক্ষিকা) কিল ঘুষি মারিনি। তাঁর বেপরোয়া কথাবর্তার কারনে তাকে সরিয়ে দিতে ধাক্কা দিয়েছি। তখন সে দরজায় আঘাত পেয়ে পড়ে যায়।

এদিকে, ঘটনার খবর শুনে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত শিক্ষিকাকে দেখতে আসেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন সহ সংশ্লিষ্টরা। খাগড়াছড়ি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD