1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News Editor : News Editor
চন্দনাইশে কমরেড মুছার স্মরণ সভায় সুব্রত চৌধুরী এখন সময় এসেছে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে জেগে উঠার - DeshBarta
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৬:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
চন্দনাইশে ডিজিটাল মেলা উদ্বোধন করলেন নজরুল ইসলাম চৌধুরী এমপি “সিজল”র শান্তিরহাট শাখার শুভ উদ্ভোধন “মুক্ত পাঠাগার” এর চট্টগ্রাম জেলা শাখার উদ্যোগে ১ম লেখক আড্ডা বাকলিয়ায় ২২ নং বিট পুলিশ ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বীর মুক্তিযোদ্ধা খায়রুল বশর’র দাফন সম্পন্ন পটিয়ায় কৃষি উৎপাদন বাড়াতে এবার কৃষকদের পাশে দাঁড়ালেন ড.জুলকারনাইন চৌধুরী জীবন অসীক দত্তকে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির চত্বরে বিশাল সংবর্ধনা। পটুয়াখালীর ওজোপাডিকোর দুর্নীতি বহুতলা ভবনে ১১ কেভি বিদ্যুতের অবৈধ সংযোগ। একাধিক ডাকাতি মামলার আসামী চোলাই মদসহ গ্রেফতার ফুটবল খেলার উন্মাদনায় ব্যস্ত যখন সবাই,সে সুযোগ কে কাজে লাগিয়ে গরু লুট

চন্দনাইশে কমরেড মুছার স্মরণ সভায় সুব্রত চৌধুরী এখন সময় এসেছে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে জেগে উঠার

  • সময় শুক্রবার, ২২ অক্টোবর, ২০২১
  • ১৩৮ পঠিত

জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, চন্দনাইশ,প্রতিনিধিঃ
বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী,গণ ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এড. সুব্রত চৌধুরী বলেছেন, কমরেড মুছা দলের নয় জনগণ ও দেশের নেতা। তিনি কোন সময় নেতা হতে চান নাই,অর্থবৃত্ত, ক্ষমতার লোভে ছিল না তার।ক্ষমতায় গিয়ে এমপি,মন্ত্রী হয়ে ভালো থাকা যায় না বলে কমরেড মুছা এসব পরিহার করতেন।কৃষক আন্দোলনের অন্যতম ভূমিকায় ছিল মুছার, ষাটের দশকের ছাত্রনেতা কমরেড মুছাকে বাদ দিয়ে চট্টগ্রাম রাজনীতির ইতিহাস লেখা যাবে না। বর্তমান রাজনীতিতে দূবৃর্ত্তায়ানের কারণে সময় সময় অঘটন হচ্ছে। এর থেকে বাঁচার জন্য ঐক্যবদ্ধ ও সুসংগঠিত হওয়ার বিকল্প নেই। সম্প্রতি দূগার্ পূজার ঘটনায় সরকারি দলের পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির ভূমিকা ছিল নিরব। ফলে অনেক ক্ষতি হয়েছে দেশের।নষ্ট হতে চলেছে সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, ঐক্য,সুসম্পর্ক। রাজনীতিকে মূলচালিকা শক্তি হিসেবে ব্যবহার করতে হবে। মন খারাপের কিছুই নেই। তিনি সরকারি ও বিরোধী দলের সমালোচনা করে বলেন,রাজনৈতিকভাবে আমরা সবাই সচেতন থাকলে পীরগঞ্জে আগুন দিয়ে গ্রাম জ্বালিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটতো না। এখন সময় এসেছে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে জেগে উঠার। ১৯৬৪ সালে এ ধরনের সম্প্রদায়িক ঘটনার সময় বঙ্গবন্ধু ডাক দিয়েছিলেন। সে সময় বঙ্গবন্ধুর ডাকে নেতা কর্মীদের মধ্যে অনেকে আত্মহুতি দিয়েছিলেন।ছাত্রদের মধ্যে আদর্শহীনতা পরিলক্ষিত হচ্ছে।এক সময় ছাত্ররাই ৬ দফা, ১১দফা আন্দোলন, গণ-অভ্যুত্থান সবোর্পরি মুক্তিযুদ্ধে ছাত্রদের ভূমিকা ছিল অন্যতম। সে সময় কমরেড মুছার মত লোকেরাই ছাত্র রাজনীতি করতো বলে ছাত্র রাজনীতির প্রতি মানুষের শ্রদ্ধা ছিল।তাই কমরেড মুছা রাজনৈতিক অঙ্গনে একটি আদর্শিক রাজনীতিবিদ ছিলেন।
গতকাল ২১অক্টোবর বিকালে দোহাজারী পৌরসভা চত্ত্বরে নাগরিক স্মরণ সভা কমিটির উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দক্ষিণ জেলা কমিউনিস্ট পাটির সভাপতি কমরেড আবদুল নবীর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী,গণ ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এড. সুব্রত চৌধুরী।সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বেগের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন,জেলা কমিউনিস্ট পাটি নেতা যথাক্রমে রতন ব্যানাজী, উজ্জ্বল ভৌমিক,ডা. আশীষ বড়ুয়া,রঞ্জিত সিকদার,উপজেলা আ’লীগ নেতা বাবর আলী ইনু,চন্দনাইশ প্রেস ক্লাবের সভাপতি এড. দেলোয়ার হোসেন, কমরেড মুছার ছেলে ডা. সম্রাট,জামাতা যথাক্রমে,দক্ষিণ জেলা যুবলীগ নেতা কুতুব উদ্দিন শাহ ইমন, আলমগীর,আমীর হোসেন,কৃষকলীগ নেতা মাষ্টার হুমায়ুন কবির, নবাব আলী,আবুল কালাম চাষী,শিমুল কান্তি ধর,প্রধান শিক্ষক বিষ্ণু যশা চক্রবর্ত্তী,গোপাল ঘোষ,সাংবাদিক আবদুল রাজ্জাক,শিক্ষক রূপক কান্তি ঘোষ,ইছা চৌধুরী প্রমুখ।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD