1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News Editor : News Editor
জোট ছাড়ার ঘোষণা জামায়াতে ইসলামীর  - DeshBarta
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
প্রিন্সিপাল আমিনুর রহমানের ইন্তেকাল বাচার পরিবারের পাশে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, ৫ লাখ টাকার অনুদান দিলেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন কৃষকের ঘরে ঘরে এখন ধান কেটে ঘরে তোলার আনন্দ বোয়ালখালীতে প্রবাসীর স্ত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থানে অধিকারী হলেন মোঃ তুহিন ইসলাম এস আলম গ্রুপের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত চক্রান্ত খতিয়ে দেখতে সরকার ও দুদকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি মাওলানা ফখরুল ইসলাম ছাহেবের মৃত্যুতে হাফিজ মাছুম আহমদ দুধরচকীর শোক প্রকাশ রাশিয়ার নিষিদ্ধ সংগঠনের তালিকায় যুক্ত হলো মেটা অনন্যাকে নিয়ে মুখ খুললেন বাবা চাঙ্কি পান্ডে বিশ্বের সবচেয়ে সরু বহুতল৷ যার উচ্চতা ১৪২৮ ফুট

জোট ছাড়ার ঘোষণা জামায়াতে ইসলামীর 

  • সময় রবিবার, ২৮ আগস্ট, ২০২২
  • ৫৩ পঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি

অবশেষে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছে জামায়াতে ইসলামী। তবে ফ্যাসিবাদী আওয়ামী সরকারের বিরুদ্ধে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে যুগপৎ কর্মসূচিতে মাঠে থাকবে জামায়াতে ইসলামী। দলটির আমীর ডা. শফিকুর রহমান দলীয় ফোরামে এক বক্তব্যে এই ঘোষণা দিয়েছেন।

সম্প্রতি নিজেদের এক ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই বক্তব্য দেন। তিনি দলীয় ফোরামে দেওয়া বক্তব্যে জানান, ২০ দলীয় জোট দীর্ঘদিন থেকেই কার্যকর নেই।

ডা. শফিকুর রহমান বলেন, আমরা এতদিন একটা জোটের সঙ্গে ছিলাম। ছিলাম বলে আপনারা হয়তো ভাবছেন কিছু হয়ে গেছে নাকি? আমি বলি হয়ে গেছে। ২০০৬ সাল পর্যন্ত এটি একটি জোট ছিলো। ২০০৬ সাল পর্যন্ত জোটটি দেশের জন্য প্রতিনিধিত্ব করেছে।

২০০৬ সালের ২৮শে অক্টোবর লাঠি, লগি, বৈঠা নিয়ে আওয়ামী লীগ ও তার জোটভুক্ত দলের সন্ত্রাসীরা দেশব্যাপী তাণ্ডব চালিয়ে ১৫ জনের বেশি মানুষকে নির্মমভাবে হত্যা করেছিল। সেদিন ঢাকার রাজপথে পল্টন মোড়ে লগি-বৈঠার তাণ্ডবে রাজপথে প্রকাশ্যে পিটিয়ে হত্যার পর লাশের উপর নৃত্য করেছিল আওয়ামী সন্ত্রাসীরা।

সেই তারিখ উল্লেখ করে জামায়াতের আমীর বলেন, ২০০৬ সালের ২৮শে অক্টোবর জোট তার দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে। সেদিন বাংলাদেশ পথ হারিয়েছিলো। সেটা আর ফিরে আসেনি। আমরা বহু চিন্তা করেছি এরপর থেকে এই জোট বাংলাদেশের জন্য আর উপকারী কিছু না।

এখানে উল্লেখ্য, আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমান বহু আগেই জামায়াতে ইসলামীকে ২০ দলীয় জোট ত্যাগের তাগিদ দিয়েছিলেন একাধিক উপ-সম্পাদকীয় লেখায়। দীর্ঘদিন পরে হলেও জামায়াতে ইসলামী বিষয়টি উপলব্ধি করতে সক্ষম হয়েছে।

জামায়াতে ইসলামীর আমীর বলেন, এবং এই জোটের সঙ্গে বিভিন্ন দল যারা আর আছেন, বিশেষ করে প্রধান দল (বিএনপি) এই জোটকে কার্যকর করার আর তাদের চিন্তা নেই। তাদের যদি চিন্তা না থাকে এটা আমরা …. তা হবে না।

জামায়াতের আমীর বলেন, এই জোটের সঙ্গে বিভিন্ন দল যারা আছেন, বিশেষ করে প্রধান দলের (বিএনপি) এই জোটকে কার্যকর করার কোন চিন্তা নাই। বিষয়টা আমাদের কাছে স্পষ্ট দিবালোকের মতো এবং তারা আমাদের সঙ্গে বসে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রধান দলের একজন নেতা তো এটা বলেই ফেলেছেন যে আমরা (বিএনপি) শরীয়া আইন সমর্থন করি না।

ভবিষ্যতে বিএনপির সঙ্গে এক হয়ে বৃহত্তর আন্দোলনের সম্ভাবনার কথাও উল্লেখ করেন ডা. শফিকুর রহমান।

তিনি বলেন, তবে হ্যাঁ জাতীয় স্বার্থে একই দাবিতে যুগপৎ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবো ইনশাআল্লাহ। আমরা তাদের সঙ্গে খোলামেলা আলোচনা করেছি, এর সাথে তারা ঐকমত্য পোষণ করেছে। তারা আর কোন জোট করবে না। এখন যার যার অবস্থান থেকে সর্বোচ্চটা দিয়ে চেষ্টা করবো।

নিজেদের একা চলার কথাও ঘোষণা করেন জামায়াতে ইসলামীর আমীর।

তিনি বলেন, এখন বাস্তবতা হচ্ছে নিজস্ব অবস্থান থেকে আল্লাহর উপর ভর করে পথ চলা। যদি আল্লাহ আমাদের তৌফিক দান করেন তাহলে আমাদের আগামী দিনগুলোতে কঠিন প্রস্তুতি নিতে হবে এবং অনেক বেশি ত্যাগ স্বীকার করতে হবে। দোয়া করেন, এসকল ত্যাগ যেনো আল্লাহর দরবারে মঙ্গলজনক হয়। এ ত্যাগের বিনিময়ে আল্লাহ পাক যেন আমাদের পবিত্র একটি দেশ দান করে। যে দেশটা কোরআনের আইনে পরিচালিত হবে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৯ সালের ৬ই জানুয়ারি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, জামায়াতের তৎকালীন আমির গোলাম আযম এবং ইসলামী ঐক্যজোটের তৎকালীন চেয়ারম্যান শায়খুল হাদিস আজিজুল হককে সঙ্গে নিয়ে চারদলীয় জোট গঠন করেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। পরবর্তীতে এই জোটে আরও অনেক দলকে অন্তর্ভুক্ত করে ২০ দলীয় জোট বিস্তৃত হয়েছিল।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD