1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News Editor : News Editor
বরগুনা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জলিলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে কাজ হারানো শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলন। - DeshBarta
বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
ইস্ট ডেল্টা এনএস গার্ডেন প্রকল্পের নির্মাণ কাজের উদ্বোধনঃ মধ্যবিত্তের আয়ত্তে মিলছে স্বপ্নের ফ্ল্যাট নূরানী পাড়া সমাজ কল্যাণ পরিষদের দ্বিবার্ষিক কার্যকরী পরিষদ গঠিত পটিয়ায় পাউবো’র ১১শ ৫৮ কোটি টাকার প্রকল্প উদ্ভোধন করলেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী চকবাজারে দিনে দুপুরে তালা কেটে সাংবাদিকের বাসায় দুধর্ষ চুরি। প্রধানমন্ত্রীর চট্টগ্রামের জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করা হবে – মুহাম্মদ বদিউল আলম ইতিহাসবেত্তা সোহেল ফখরুদ-দীনের বাসভূমি পুরস্কার লাভ এস. আলম গ্রুপ দেশের উন্নয়নে, মানুষের কল্যানে নিয়োজিত। লোহাগাড়া প্রবাসী সমিতি,সৌদি আরব’র ৪র্থ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন চন্দনাইশে ডিজিটাল মেলা উদ্বোধন করলেন নজরুল ইসলাম চৌধুরী এমপি “সিজল”র শান্তিরহাট শাখার শুভ উদ্ভোধন

বরগুনা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জলিলের দুর্নীতির বিরুদ্ধে কাজ হারানো শ্রমিকদের সংবাদ সম্মেলন।

  • সময় মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৬৩ পঠিত

এস আল-আমিন খাঁন বরিশাল ব্যুরো।

বরগুনা খাদ্যগুদামে দীর্ঘ বছরের কর্মরত শ্রমিকরা দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলায় কাজ হারানোর প্রতিবাদে খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল জলিলের বিরুদ্ধে বরগুনা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

মঙ্গলবার (১৭-জানুয়ারি-২০২২ ইং) তারিখ সকাল ১০টার দিকে এ সংবাদ সম্মেলন করে বরগুনা খাদ্যগুদাম শ্রমিক ইউনিয়ন লিমিটেডের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সুমন সিকদার সহ অন্যান্য শ্রমিকরা।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গত ২০২০ সালের জুন মাসে বেতাগী খাদ্য গুদাম হতে পঁচা ও পোকে খাওয়া ১৭০ মেট্রিকটন চাল বরগুনা খাদ্যগুদামে আনা হলে শ্রমিকরা খাদ্যগুদামে কর্মরত অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বললে বিষয়টি জানাজানি হয়। এতে সাংবাদিকরা হাতেনাতে ধরে ফেলে বিষয়টি বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ফলাও করে প্রকাশ করেন।

এতে ক্ষুব্ধ হয়ে খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শ্রমিকদের তাড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন। বিষয়টি নিয়ে ২০২০ সালের পহেলা জুলাই বরগুনা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়। এর পরে ১৫ অক্টোবর এ সকল শ্রমিকদের খাদ্য গুদাম থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়। বিষয়টি জানিয়ে ২০২০সালের ১৮ অক্টোবর বরগুনা জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করলে জেলা প্রশাসক এর নির্দেশে শ্রমিকদের পুনরায় কাজে বহাল করা হয়। এর পরবর্তী এক বছর শ্রমিকরা ভালোভাবেই কাজ করছিল।

পরে গত ২০২১ সালে শ্রমিকরা তাদের পাওনা টাকা চাইতে গেলে আবারো সমস্যার সৃষ্টি হয়। ২০১৯ সালে গুদামের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা মোঃ আল মামুন ২ হাজার ৮শ’ ৫০ মেট্রিক টন ধান গুদামজাত করেন। সেখানে ২৫০ টাকা দরে শ্রমিকদের পাওনা উত্তোলন করে শ্রমিকদের হাতে না দিয়ে তৎকালীন খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আল মামুন পকেটেভরে নেয় এবং বরগুনা থেকে বদলি হয়ে যান।

বদলির সময় বর্তমান খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল জলিল শিকদার শ্রমিকদের টাকা আল মামুনের কাছ থেকে বুঝে রেখেছেন এবং পরবর্তীতে তাদের দিয়ে দেয়ার অঙ্গীকার করেন। পরবর্তীতে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আঃ জলিলের কাছে টাকা চাইতে গেলে শ্রমিকদের তাড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেন। তাছাড়া তিনি সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ডেলিভারি মূল্য ৩৩০ টাকার পরিবর্তে ১৮০ টাকা করে দেয়ায় শ্রমিকরা প্রতিবাদ করলে গত ২১ সালের ২১ নভেম্বর খাদ্যগুদামের পরিদর্শক আব্দুল জলিল শিকদার, টালি মাস্টার শফিকুল ইসলাম, লেবার সর্দার ফোরকান সহ ১২ থেকে ১৪ জন লোক মিলে খাদ্যগুদামের সামনে থেকে এই শ্রমিকদের ভয়-ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দেন।

এ বিষয়ে বরগুনা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি ফৌজদারি মামলা চলমান রয়েছে। যাহার মামলার নং- ৪৯৮/২০২১ বরগুনা।

শ্রমিকদের পক্ষে বরগুনা খাদ্যগুদাম শ্রমিক ইউনিয়ন লিমিটেডের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সুমন সিকদার স্বাক্ষরিত একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমন দুর্নীতির বিষয় উঠে আসে।

সংবাদ সম্মেলনে কাজ হারানো শ্রমিকরা তাদের স্ত্রী সন্তানদের মানবেতর জীবনযাপন থেকে উত্তরন চেয়ে এবং পুনরায় কাজে যোগদান করার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD