1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News Editor : News Editor
ভাইরাস জনিত চক্ষুরোগের প্রাদুর্ভাবে চকরিয়ায় চশমার চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। - DeshBarta
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০১:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
পটিয়া ৯৪ এর ফ্যামিলি মিলন মেলা ও মেজবান উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত খালিয়াজুরীতে ৯ই ডিসেম্বর বার্ষিক ঈসালে সাওয়াব মাহফিল শিশু আয়াত হত‍্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান – বঞ্চিত নারী ও শিশু অধিকার ফাউন্ডেশন দুমকি উপজেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল। গামছা পলাশ ও দিপা’র নতুন গান ‘চক্ষু দুটি কাজলকালো’ চট্টগ্রাম সিটি একাডেমি স্কুলের ক্লাস পার্টি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন  ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা তৃণমূলে প্রতিষ্ঠায় নির্মূল কমিটির অবদান অনস্বীকার্য’ বাঁশখালী সম্মেলনে ড.সেকান্দর চৌধুরী দাকোপ রিপোর্টার্স ক্লাবের উপ নির্বাচনে কোষাধ্যক্ষ পদে অরুপ সরকার নির্বাচিত। মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি ফাউন্ডেশনের উদ্যেগে মসজিদে বয়স্কদের কোরআন শিক্ষা কোর্সের উদ্ভোধন মরহুম নুরুল ইসলাম ডিসি ফুটবল একাদশ ৩-১ গোলে জয়ী

ভাইরাস জনিত চক্ষুরোগের প্রাদুর্ভাবে চকরিয়ায় চশমার চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

  • সময় শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০২২
  • ৪৬ পঠিত

জেপু.দত্ত,চকরিয়া প্রতিনিধিঃ

কক্সবাজার জেলার চকরিয়ায় চশমা বিক্রির হার বৃদ্ধি পেয়েছে। চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স সংলগ্ন ফার্মেসীতে চোখের ড্রপ ও চকরিয়া সদর মার্কেটসহ গ্রামাঞ্চলের দোকান গুলোতে চশমা বিক্রি হচ্ছে ব্যাপক হারে।

সাম্প্রতিক সময়ে কনজাংটিভাইটিস (চোখ ওঠা) নামক এক প্রকার ভাইরাস জনিত চুক্ষুরোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিলে কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলা সদরের মার্কেট ও গ্রামাঞ্চলের হাট-বাজারে রঙ্গিন বা সাদা কালো চোখের চশমা ব্যাপক হারে বিক্রি হতে দেখা গেছে। এসব দোকানে ক্রেতারা চশমা ক্রয় করার জন্য ভীড় করছে।

মূলতঃ গ্রীষ্মের তাপদাহে ভাইরাস জনিত এ রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিলেও এবার শরত ঋতুর মাঝখানে কনজাংটিভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে চকরিয়াসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলার গ্রাম গন্জে এর প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে চকরিয়ায় ফার্মেসীতে চোখের ড্রপ পাচ্ছে না বলে ভোক্তাভোগী চোখ ওঠা রোগীরা এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন।
চকরিয়ায় চশমার দোকানসহ বিভিন্ন দোকান ও মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে ক্রেতাদের ভীড়। শিশু,বৃদ্ধ, নারী,পুরুষ চোখ ওঠাকে কেন্দ্র করে চশমা ক্রয় করছে।

এ ব্যাপারে ক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে,দু’এক মাস ধরে ভাইরাস জনিত চক্ষু রোগের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় পরিবারের সবাই একের পর একজন এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। ফলে চোখকে নিরাপদে রাখার জন্য চশমা ক্রয় করতে হচ্ছে।

চকরিয়ার নুরুউদ্দীন নামের এক চশমা ক্রেতা এ প্রতিনিধিকে জানালেন,৩০-৪০ টাকা মূল্যের চশমা এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকা মূল্যে। ৭০-৮০ টাকা মূল্যের চশমা এখন বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকা মূল্যে। এ ব্যাপারে চকরিয়ার মসজিদ মার্কেটের চশমা দোকানের ব্যবসায়ীর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান,চশমার চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় সরবরাহ কম। এছাড়া ক্রয়মূল্য বেশি হওয়ায় বর্তমান বাজারে দাম একটু বেশি নিতে হচ্ছে।

এদিকে,চকরিয়া সরকারী হাসপাতাল সংলগ্ন ফার্মেসী গুলোতে দেখা দিয়েছে চোখের ড্রপের সংকট। এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীরা ছুটছেন ফার্মেসীর নিকট চোখের ড্রপ কেনার লক্ষ্যে।অনেক রোগী খোঁজাখুঁজি করে চোখের ড্রপের খোঁজ পেলেও অনেকে হতাশ হয়ে ফিরছেন বলে জানালেন স্থানীয় ফার্মেসীর মালিক ও ব্যবসায়ীরা। তারা জানালেন,অন্যান্য সময় ঔষুধের দোকানে বিভিন্ন কোম্পানীর চোখের ড্রপ মওজুদ থাকলেও এ ঋতুতে চাহিদা বাড়ায় এন্টিসেপ্টিক জাতীয় চোখের ড্রপ সরবরাহ করা যাচ্ছে না।
ছোঁয়াচে ভাইরাস জনিত চোখের এ রোগটির প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় আর্থিক সচ্ছল রোগীরা চক্ষু বিশেষজ্ঞের শরনাপন্ন হলেও অনেকে আর্থিক অক্ষমতার কারণে কোনো রকম দিন কাটাচ্ছেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD