1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News Editor : News Editor
ভূতুড়ে নগরী, শোকজ খাচ্ছেন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী - DeshBarta
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০২:১৬ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
ফুটবল খেলার উন্মাদনায় ব্যস্ত যখন সবাই,সে সুযোগ কে কাজে লাগিয়ে গরু লুট পটিয়া ৯৪ এর ফ্যামিলি মিলন মেলা ও মেজবান উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত খালিয়াজুরীতে ৯ই ডিসেম্বর বার্ষিক ঈসালে সাওয়াব মাহফিল শিশু আয়াত হত‍্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান – বঞ্চিত নারী ও শিশু অধিকার ফাউন্ডেশন দুমকি উপজেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল। গামছা পলাশ ও দিপা’র নতুন গান ‘চক্ষু দুটি কাজলকালো’ চট্টগ্রাম সিটি একাডেমি স্কুলের ক্লাস পার্টি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন  ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা তৃণমূলে প্রতিষ্ঠায় নির্মূল কমিটির অবদান অনস্বীকার্য’ বাঁশখালী সম্মেলনে ড.সেকান্দর চৌধুরী দাকোপ রিপোর্টার্স ক্লাবের উপ নির্বাচনে কোষাধ্যক্ষ পদে অরুপ সরকার নির্বাচিত। মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি ফাউন্ডেশনের উদ্যেগে মসজিদে বয়স্কদের কোরআন শিক্ষা কোর্সের উদ্ভোধন

ভূতুড়ে নগরী, শোকজ খাচ্ছেন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী

  • সময় সোমবার, ২৯ আগস্ট, ২০২২
  • ৩৩ পঠিত

ইসমাইল চৌধুরী

বন্দর নগরী চট্টগ্রামের অলিগলি অন্ধকার কেন, তার কারণ জানতে চাওয়া হবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের বিদ্যুৎ শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ঝুলন কুমার দাশের কাছে।

রোববার নগরীর আন্দরকিল্লায় পুরাতন নগর ভবনে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (সিসিসি) ১৯তম সাধারণ সভায় ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত হয়।

পাশাপাশি পরিচ্ছন্নতা বিভাগের জোন প্রধানদের আনা দুর্ব্যবহারের অভিযোগের ভিত্তিতে উপ-প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলমকে মৌখিকভাবে সর্তক করা হয়েছে।

সিসিসির পরিচ্ছন্নতা স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর মোবারক আলী বলেন, “সভায় আমি অভিযোগ উত্থাপন করি। নগরীর প্রধান সড়কগুলোতে নিয়মিত নতুন সড়ক বাতি স্থাপন ও সংস্কারের কাজ চলছে। কিন্তু গত ১৯ মাসে অলিগলিতে নতুন কোনো লাইটের শেড হয়নি। এছাড়া নষ্ট সড়কবাতি প্রতিস্থাপনও ঠিকমত করা হয় না। আমার এলাকায় অলিগলির ৭০টি সড়ক বাতি নষ্ট হওয়ার বিপরীতে নতুন বরাদ্দ মিলেছে ২৫টি। পুরো নগরীর অলিগলিতে মোট ১৩০০ নষ্ট বাতির বিপরীতে নতুন লাগানো হয়েছে ৪০০টি।”

বিদ্যুৎ শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ঝুলন কুমার দাশকে বারবার তাগাদা দিয়েও কাজ হচ্ছে না বলে তার কাছে লিখিত জবাব চাওয়া হচ্ছে বলে এই ওয়ার্ড কাউন্সিলর জানান।

ঝুলন কুমার দাশকে কারণ দর্শানোর নোটিস দিতে সিসিসি সচিব খালেদ মাহমুদকে নির্দেশ দেন সিটি মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী।

এ বিষয়ে জানতে সচিব খালেদ মাহমুদকে একাধিকার কল করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। তত্ত্বাবধায়ক ঝুলন দাশকে ফোন করা হলে তিনি কল কেটে দেন। রোববারের সাধারণ সভায়ও ছিলেন না তিনি।

অন্যদিকে, সিসিসির উপ-প্রধান পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা মোরশেদুল আলমের বিরুদ্ধে কর্মীদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে সভায়। এজন্য মেয়র তাকে মৌখিকভাবে সর্তক করে দেন।

সিসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলমের সঞ্চালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলররা, সচিব খালেদ মাহমুদ, প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, মেয়রের একান্ত সচিব ও প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মুহাম্মদ আবুল হাশেম।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD