1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : News Editor : News Editor
মুরগীর বাচ্চা জন্ম নিলেই মুরগী,, কিন্তু মানুষের বাচ্চা জন্ম নিলেই মানুষ হয়ে যায় না>লেখাঃশ্রেয়া আহমেদ আরশি - DeshBarta
সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০১:১১ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
পটিয়া ৯৪ এর ফ্যামিলি মিলন মেলা ও মেজবান উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত খালিয়াজুরীতে ৯ই ডিসেম্বর বার্ষিক ঈসালে সাওয়াব মাহফিল শিশু আয়াত হত‍্যাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান – বঞ্চিত নারী ও শিশু অধিকার ফাউন্ডেশন দুমকি উপজেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল। গামছা পলাশ ও দিপা’র নতুন গান ‘চক্ষু দুটি কাজলকালো’ চট্টগ্রাম সিটি একাডেমি স্কুলের ক্লাস পার্টি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন  ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা তৃণমূলে প্রতিষ্ঠায় নির্মূল কমিটির অবদান অনস্বীকার্য’ বাঁশখালী সম্মেলনে ড.সেকান্দর চৌধুরী দাকোপ রিপোর্টার্স ক্লাবের উপ নির্বাচনে কোষাধ্যক্ষ পদে অরুপ সরকার নির্বাচিত। মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি ফাউন্ডেশনের উদ্যেগে মসজিদে বয়স্কদের কোরআন শিক্ষা কোর্সের উদ্ভোধন মরহুম নুরুল ইসলাম ডিসি ফুটবল একাদশ ৩-১ গোলে জয়ী

মুরগীর বাচ্চা জন্ম নিলেই মুরগী,, কিন্তু মানুষের বাচ্চা জন্ম নিলেই মানুষ হয়ে যায় না>লেখাঃশ্রেয়া আহমেদ আরশি

  • সময় রবিবার, ৩ অক্টোবর, ২০২১
  • ১৩৩ পঠিত

বর্তমান সমাজের প্রেক্ষাপট দেখলে কথাটি সম্পূর্ণ বাস্তব।। মানুষ জন্ম নিলেই মানুষ হয়ে যায় না।।মানুষ হতে হলে তার চরিত্র, ব্যক্তিত্ব,মনুষ্যত্ব, বিবেকবুদ্ধি সবকিছুকেই তার হৃদয়ে /নিজের মধ্যে ধারণ করতে হবে।। তবেই সে প্রকৃত মানুষ হয়ে উঠবে।।ইসলাম ধর্মে মানুষকে বলা হয়েছে আশরাফুল মাখলুকাত অর্থাৎ পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ট সৃষ্টি বা সৃষ্টির সেরা জীব।।কিন্তু কিছু মানুষ আছে কি বলব এদের মানুষ বললে মানবজাতিকে অপমান করা হবে। ।এরা আসলে মানুষের পর্যায়েই পরে না।। পশুর চেয়েও অধম এসব মানুষেরা।।হ্যাঁ বলছি সেসব ওভারস্মার্ট মানুষদের যারা সালমান ভাইয়ার সুন্দর ছবিগুলোকে এডিট করে নোংরাভাবে উপস্থাপন করতে ব্যস্ত।।আরে হঠাৎ করে কিছু পেলে যা হয় আর কি।কুকুর যেমন অনেকদিন ক্ষুদার্থ থাকার পর খাবার পেলে পাগলের মতো করে এসব মানুষেরাও ঠিক এমনই নতুন কিছু পেলে কি করবে কি করবে না বুঝতে পারে না।। সালমান ভাইয়াকে আল্লাহ সুন্দর চেহেরা,চরিত্র, জ্ঞান, যোগ্যতা দিয়েই পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন।। আর তাই মৃত্যুর ২৫ বছর পরেও তার নামটি পৃথিবীর পাতা থেকে মুছে যায় নি। সালমান ভাইয়ার যে যোগ্যতা ছিল সে যোগ্যতা কোটিতে একটা মানুষেরই থাকে।।আর সেই মানুষটা নেই বলে তাকে নিয়ে যে যেমন ইচ্ছে তেমন করে যাবে????একের পর এক নোংরামি করেই যাচ্ছেন! কিন্তু কেনো!!!সে কি আপনাদের বাপের টাকায় খেয়ে,পড়ে মানুষ হয়েছে?? নাকি আপনাদের কারো কাছ থেকে টাকা ধার নিয়েছে?? কোনটা?? এই দুটো প্রশ্নের একটিরও উত্তর যদি হ্যাঁ মনে থাকেন কেউ তাহলে আপনি বোকার স্বর্গে বাস করছেন।।কারণ এই দুটো প্রশ্নের উত্তর হ্যাঁ হওয়া মানে আপনি আকাশের চাঁদ স্পর্শ করে ফেলেছেন যা সম্পূর্ণ অবাস্তব, কাল্পনিক, এবং হাস্যকর।।আরে আপনারা তো সালমানের স অক্ষরটাও উচ্চারণ করার যোগ্য না।এডিট করছেন ভালো কথা তার যে ছবিগুলো অস্পষ্ট/ঝাপসা সেগুলোকে একটু পরিষ্কার করা এতটুকুতেই তো শেষ।।কিন্তু এতো জঘন্যভাবে এডিট করছেন যেমনঃতার চোখ নষ্ট, মুখ নষ্ট,মুখে দাড়ি লাগিয়ে দেওয়া, কাপড়ের কালার চেঞ্জ করে দেওয়া,দাঁত নষ্ট, এমনকি পুরো চেহেরাটাকে এমনভাবে এডিট করছেন এটা যে সালমান ভাইয়া চিনতেও কষ্ট হবে মানুষের।।আরে যেমনভাবে তার ছবিগুলোকে এডিট করছেন ঠিক তেমনভাবে আপনাদের টাও করে দেখেন না নিজেকে নিজের দেখতে কেমন লাগে।।একটা মৃত মানুষকেও ছাড়ছেন না ছিঃ ছিঃ ছিঃ ধিক্কার জানাই আপনাদের মতো মানুষকে । আরে সে তে এখন আল্লাহর হেফাজতে কিন্তু ভেবে দেখেছেন সেই পরিস্থিতিতে একদিন আপনাদের ও যেতে হবে।।আল্লাহ কে কি জবাব দেবেন!!!

এতো সুন্দর একটা মানুষের আসল ছবিগুলোকে এডিট করে নষ্ট করে দিচ্ছেন।। এরকম চলতে থাকলে তো ভবিষ্যৎ প্রজন্ম সালমান ভাইয়ার আসল ছবি দেখতে পাবে না!!!আরে মেকআপ, লিপস্টিক লাগাতে হলে আপনাদের নিজদের নিজেরাই লাগান না।। না থাকলে আমাদের মেসেঞ্জারে নক করবেন যাদের লাগবে আপনাদের এই মহামূল্যবান স্বপ্ন পূরণ করতে আমি প্রস্তুত।। কিন্তু দয়া করে সালমান ভাইয়ার ছবি এডিট করা বন্ধ করুন। সালমান ভাইয়া জীবনে কখনও মেকআপ করেছে এরকম প্রমাণ কেউ দেখাতে পারবেন? যে মানুষ আল্লাহ প্রদত্ত সুন্দর তাকে দুনিয়ার আজে বাজে জিনিস দিয়ে আরও সুন্দর করার ক্ষমতা আছে কার????

আবার কিছু কিছু সালমান ভক্ত আছে যারা বাজে এডিট ফটো দিয়ে পোস্ট করে।।কেনো সালমান ভাইয়ার কি একটা-দুটো ছবি আছে??হাজার -,হাজার ছবির ভান্ডারে তাদের এডিট ফটো গুলোই চোখে পরে।এগুলো কোন ভক্ত হতে পারে না এক একটা শত্রু।।যেখানে মামুনি নীলা চৌধুরী সালমান ভাইয়ার ছবি দিতেই নিষেধ করেছেন সেখানে আপনারা এডিট ফটো ছড়িয়ে দিচ্ছেন!কতোবড় দুঃসাহস আপনাদের।। কথায় আছে না “অন্যায় যে করে অন্যায় যে সহে দুজনেই সমান দোষী ” এসব ভক্তরা এডিটের বিরুদ্ধে কথা না বলে এডিটরদের সুযোগ সৃষ্টি করে দিচ্ছে।। তাই এডিটর আর এদের মধ্যে কোন পার্থক্য নেই।।

আসলেই মন সবার থাকলেও মনুষ্যত্ব সবার থাকে না।। লজ্জা করে না ভক্ত না হয়ে ভক্ত সেজে অভিনয় করতে??আরে সালমান কে উপরে রাখার জন্য তার মতো একটা যোগ্য ভক্তই যথেষ্ট।। কোটি কোটি ভক্ত দিয়ে কি হবে যদি তা হয় ভন্ড ভক্ত।।

সালমান শাহ কে যতই নিচু করার চেষ্টা করা হয় না কেনো তার স্থান তারই থাকবে সেখানে অন্য কোন নায়কের স্থান কখনোই হবে না।। যদি তেমনই হতো এতোদিন কেউ সালমান শাহ পাগল থাকতো না অনেক আগেই ভুলে যেতো সালমান শাহ কে।। কিন্তু সে এমনই একজন মানুষ যাকে মৃত্যুর আগ মূহুর্ত পর্যন্ত ভুলে যাওয়া সম্ভব নয়।। তাই সালমান শাহ্ কে নিচু করার স্বপ্ন অর্থাৎ ছেঁড়া কাঁথায় শুয়ে লাখ টাকার স্বপ্ন দেখার মতো অবাস্তব কিছু ভাববেন না।।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD