1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
রাসুলুল্লাহ সা: এর ব্যঙ্গ চিত্র করে অবমাননার প্রতিবাদে আজ জামিয়া ইসলামিয়া আজিজুল উলুম বাবুনগর - DeshBarta
রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৪৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
লায়ন্স ক্লাব অব চিটাগাং শতাব্দীর মাসিক সভা অনুষ্ঠিত। আইটি ট্রেনিং প্রকল্প প্রধানমন্ত্রীর অনন্য উপহার। প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমদ পলক এম পি। মাদারবাড়ী শোভনীয়া ফুটবল একাডেমি শুভ উদ্ধোধনী ও গুনিজন সংর্বধনা অনুষ্টান সম্পন্ন। ক্ষতিগ্রস্থ ক্ষুদ্র ও কৃষকদের বিনা মুল্যে বীজ ও সার বিতরণ করেন বাঁশখালীতে দাবি আদায়ের লক্ষ্য স্বাস্থ্য সহকারীদের অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতি বাকলিয়ায় বীর মু্ক্তিযোদ্ধা তাহের উদ্দিনের ২০ তম মৃত্যুবার্ষিকী ও শফিকুল ইসলামের স্মরণ সভা অনু্ষ্ঠিত খুলনার দাকোপ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করেন নির্বাহী অফিসার মিন্টু বিশ্বাস গাইবান্ধার বাদিয়াখালীতে শৌলতারী ব্রীজের নিচ থেকে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার. জমকালো আয়োজনে সন্দ্বীপ স্টুডেন্টস্ এসোসিয়েশন, চট্টগ্রাম কলেজের ৭ম বর্ষপূর্তি উদযাপন-২০২০ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন DSH এর উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে ৩০০ কম্বল বিতরন

রাসুলুল্লাহ সা: এর ব্যঙ্গ চিত্র করে অবমাননার প্রতিবাদে আজ জামিয়া ইসলামিয়া আজিজুল উলুম বাবুনগর

  • সময় বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ১১৬ পঠিত

রাসুলুল্লাহ সা: এর ব্যঙ্গ চিত্র করে অবমাননার প্রতিবাদে আজ জামিয়া ইসলামিয়া আজিজুল উলুম বাবুনগ।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

রাসুলুল্লাহ সা: এর ব্যঙ্গ চিত্র করে অবমাননার প্রতিবাদে আজ জামিয়া ইসলামিয়া আজিজুল উলুম বাবুনগরে মুজাহিদে মিল্লাত আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরির সভাপতিত্বে, বিশিষ্ট আদিব আল্লামা হারুন আজিজি নদভীর তত্ত্বাবধানে এবং প্রতিভাবান ব্যক্তিত্ব এবং অভিজ্ঞ সঞ্চালক মুফতি ইকবাল হাফিজাহুল্লাহ এর সঞ্চালনায় এক বিশাল প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জামিয়া ছাত্রবৃন্দ এবং জনসাধারণ উপস্থিতিতে বক্তারা উক্ত প্রতিবাদ সভাই বিভিন্ন দিক নিয়ে কথা বলেন।

উদ্বোধনী বক্তব্য পেশ করতে এসে জামিয়ার সিনিয়র মুহাদ্দিস আল্লামা হারুন আজিজি নদভী বলেন, অনেকের মন্তব্য মাঠে ময়দানে এই প্রতিবাদ সভা হওয়া উচিৎ ছিলো কিন্তু আমার জানামতে বাংলাদেশে প্রাতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ হতে এই প্রথম প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিকভাবে হচ্ছে,তাই সভাও প্রতিষ্ঠানে হচ্ছে। জামিয়া বাবুনগরের ঐতিহ্যই হলো, সবসময় অন্যায়ের বিরুদ্ধে অগ্রগ্রামী ভুমিকা রাখা। সারা পৃথিবীর আর কেউ থাকুক না থাকুক, জামিয়া বাবুনগরের একজন ছাত্রের গায়ে যতক্ষণ রক্ত থাকবে,ততক্ষণ নবীর অবমাননা হলে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবো। আমাদের জন্য রাসুলুল্লাহ সা: প্রথম দাবী হচ্ছে, রাসুল যেভাবে তার মিশনকে এগিয়ে নিয়েছেন,আমরাও সেভাবে এগিয়ে নেবো ইনশা আল্লাহ।

সভাপতি বক্তব্যে আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরি বলেন,প্রাণাধিক প্রিয় রাসুলের ব্যঙ্গচিত্র করে ফ্রান্স সরকাত সমগ্র মুসলিম জাহানের মুসলমানদের অন্তরে আঘাত দিয়েছে। তাদের পণ্য বয়কটের এবং কূটনৈতিক সম্পর্কের ছিন্ন করার দাবী জানাচ্ছি সরকারের প্রতি।

জামিয়ার মুহাদ্দিস আল্লামা মাহমুদ শাহ বলেন,ফ্রান্সের সরকার যদি জাতির কাছে ক্ষমা না চায়,তাহলে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবো এবং সরকারকে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা বলেন।

সবচেয়ে তথ্যবহুল আলোচনা করেছেন মুফতি আবু মাকনুন মুহাম্মাদ আজিজি, তিনি বলেন,ফ্রান্স সরকার বাকস্বাধীনতার কথা বলে বেড়ায়,অথচ মুসলিম সংখ্যালঘুদের প্রতি অত্যাচার করা হচ্ছে। ৫৬ লক্ষ মুসলমানের জন্য সরকারিভাবে তাঁরা ১২১ টি মসজিদের অনুমোদন দিয়েছে মাত্র, পক্ষান্তরে ইহুদীদের উপাসনালয় এবং খ্রিস্টানদের গীর্জা রয়েছে পাঁচ হাজারের অধিক। এটাই কী তাদের বাক্স্বাধীনতা!। ইতিহাসের বিভিন্ন ঘটনা সামনে এনে তাঁরা কেমন ইসলাম ও মুসলিম বিদ্বেষী তা প্রমাণ করেন। আমরা যদিও প্রতিবাদ জানাতে ফ্রান্স যেতে পারবো না, কিন্তু ফ্রান্সের দূতাবাস ঘেরাও করে একটা একটা করে ইট ঠিকই নিয়ে আসতে পারবো।

মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, জামিয়ার শিক্ষক হাফেজ মাওলানা ফরিদ সাহেদ হাফিজাহুল্লাহ বলেন, সেক্যুলারের অর্থে তাঁরা বলে ধর্মনিরপেক্ষতা। অথচ সেক্যুলার মানে ধর্মহীনতা। যে কয়টা সেক্যুলার রাষ্ট্র আছে,তন্মধ্য ফ্রান্স অন্যতম। সেক্যুলারিজমের প্রতিষ্ঠাতা তুরস্কের সাবেক রাষ্ট্র প্রধান কামাল পাশা আতার্তুক তুরস্কে প্রকাশ্যে ইসলাম পালন নিষিদ্ধ করেছিলো,অথচ রজব তায়্যিব এরদোয়ানের হাতে বর্তমান তুরস্ক আবার তাঁর প্রাণ ফিরে পেয়েছে। কামাল পাশা আতার্তুক চলে গেছে কিন্তু ইসলাম ঠিকই রয়ে গিয়েছে,তেমনি ফ্রান্সের বাপ দাদারা ইসলামের কিচ্ছু করতে পারেনি,তারাও পারবেনা ইনশা আল্লাহ।

বিশিষ্ট ভাষাবিদ ও জামিয়া বাবুনগরের সিনিয়র শিক্ষক মুফতি ইকবাল হাফিজাহুল্লাহ বলেন,ফ্রান্স সরকার ম্যাক্রো যদি ক্ষমা না চায় তাহলে মুসলমানদের ৩১৩ জনের একটি কাফেলাই তাঁদের জন্য যথেষ্ট হবে,ইনশা আল্লাহ আল্লাহ। যে যেভাবে পারি তাদের পণ্য বয়কট করে তাদের অর্থনৈতিক সংকটে পড়ে, পরে কখনো ইসলাম-মুসলিম নিয়ে বিদ্রুপ করা ধৃষ্টতা না দেখায়।

জামিয়া বাবুনগরের মুহাদ্দিস,দরস সম্রাট মুফতি রহিমুল্লাহ হাফিজাহুল্লাহ বলেন ফ্রান্স সরকার প্রধান ম্যাক্রো মুসলমানদের উপর নির্যাতনের মাইক্রো চালিয়েছে, আমরা তাদের সকল প্রকারের পণ্য বয়কট করে তাঁর নিন্দা জানাবো,তাঁদের অর্থনৈতিক চাপে ফেলবো। কোভিট ১৯ এসে সারা বিশ্বকে নাকানিচুবানি দিয়েছে,এভাবে ধৃষ্টতা দেখাতে থাকলে ২০ এসে ফ্রান্স সরকারকে ধ্বংস করে দিবেন। ইনশা আল্লাহ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাহরুল উলুম মুফতি মীর হোসাইন হাফিজাহুল্লাহ বলেন,ফ্রান্স ইসলাম বিরুধী কর্মকাণ্ড করেই যাই। প্রকশ্যে খুব কম আসে। ক্রুসেড যুদ্ধেও খ্রীস্টানদের প্রতিনিধিত্ব করেছিলো ফ্রান্স। তারা আজীবন মুসলমানদের শত্রুতা করেই আসছি। বাকস্বাধীনতা বলতে কিচ্ছু নেই, এসব শুধু তাদের মুখের বুলি। তখন থেকে এখন পর্যন্ত নানাভাবে মুসলমানদের নির্যাতন করে আসছি। তাদের পণ্য বর্জন করে তাদের উচিত একটা শিক্ষা হবে।

জামিয়া বাবুনগরের সহকারী পরিচালক আল্লামা আইয়ুব বাবুনগরি বলেন,আমাদের মা বাবাকে গালি দিলে তো প্রতিবাদ সভার আয়োজন করতে,যখন যেখানে থাকো,সেখান থেকেই প্রতিবাদ শুরু করো। বিশ্ব নবী আমাদের প্রাণাধিক প্রিয় বিশ্ব নবীর অপমান,সইবে না আর মুসলমান। যে হাত নবীর বিরুদ্ধে যাবে,সে হাত কেটে ফেলা হবে। যে জিহবা ইসলাম বিরুদ্ধে যাবে, তাঁর জিহবা টেনে ছিড়ে ফেলা হবে।

জামিয়া বাবুনগরের মুহাদ্দিস আল্লামা সোয়াইব বাবুনগরী বলেন, নবীর ব্যঙ্গ চিত্রের মাধ্যমে নবীর অবমাননা কক্ষনো মেনে নেওয়া যায় না। ফ্রান্স যে দোষ করেছে,ফ্রান্স সরকার প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে।

সব শেষে সরকার কর্তৃক সাত দফা উত্থাপন করা হয় এবং আল্লামা আইয়ুব বাবুনগরির হৃদয়বিদারক মোনাজাতের মাধ্যমে প্রতিবাদ সভার সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

বি:দ্র: প্রত্যেকজন বক্তা ৭ থেকে ১২ মিনিট করে বক্তব্য রাখেন,তাদের বক্তৃতার এক বাক্য বা দু’বাক্য করে লিখা হয়েছে মাত্র। তাঁদের প্রত্যেকটা বক্তৃতা আলাদা আলাদা করে লিখা হলে একটা করে কলাম হয়ে যাবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD