1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
ফাইনাল এক্সিট ভিসা ইস্যু হলে বিলম্ব না করে দ্রূত সৌদি ত্যাগ করুন। - DeshBarta
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০৫:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
“সেইভ দ্যা হাঙ্গার পিপল” সংগঠন এর অভুক্তদের মাঝে খাবার বিতরণ সমাজসেবক আবদুল মাবুদ দোভাষের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ সাংবাদিক মাতা ছৈয়দা রোকসানা কাউসারের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত ছাত্রীকে বিয়ে করে গোপন রাখায় ৩ সন্তানের জনক শিক্ষক কে গণধোলাই কুয়াকাটায় হোটেলে মাদকসহ আটক দুমকির আওয়ামীলীগ নেতাকে বহিষ্কার দুমকিতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের মধ্যে বিআরডিবির ঋণ বিতরণের উদ্বোধন ভাষা সৈনিক ও চমেক সাবেক উপ-পরিচালক ডা. শামসুদ্দিন চৌধুরী আর নেই ডাঃ এ,জে,এম শামসুদ্দিন চৌধুরীর দাফনে গাউসিয়া কমিটি স্বেচ্ছাসেবক টিম কোরআন ও হাদিসের আলোকে ইসলামী দাওয়াত এর গুরুত্ব! হাফিজ মাছুম আহমদ দুধরচকী। সহকারী কমিশনার (ভূমি) পদে যোগদান করলেন কক্সবাজারের কৃতি সন্তান মো.মিজানুর রহমান

ফাইনাল এক্সিট ভিসা ইস্যু হলে বিলম্ব না করে দ্রূত সৌদি ত্যাগ করুন।

  • সময় মঙ্গলবার, ২৯ জুন, ২০২১
  • ৬৫ পঠিত

ফাইনাল এক্সিট সমাচার ……
১। সকাল সকাল একজন আসলেন। এসে জানালেন তিনি ফাইনাল এক্সিট ভিসা নিয়ে একেবারে বাংলাদেশে চলে যাচ্ছিলেন, বিমানবন্দরে গিয়ে দেখেন বাসায় পাসপোর্ট ফেলে এসেছেন। বাসায় গিয়ে পাসপোর্ট নিয়ে বিমানবন্দরে এসে দেখেন তার ফাইনাল এক্সিট ভিসার মেয়াদ শেষ।
২। কি বুঝলেন?
তিনি একেবারে কানায় কানায় লাগিয়ে টিকেট নিয়েছেন, শেষে ধরা খেয়েছেন।
৩। কি করা উচিৎ ছিল?
ফাইনাল এক্সিট পাওয়ার সাথে সাথেই সৌদি আরব ত্যাগ করা উচিৎ ছিল। অন্তত ভিসার মেয়াদ ১৫ দিন থাকার পূর্বে টিকেট করুন। কোন সমস্যা দেখা দিলে যেন তা সমাধান করা যায়। যদিও ফাইনাল এক্সিট ভিসা দেয়ার পর ৬০ দিন সৌদি আরবে থাকার অনুমতি রয়েছে, কিন্তু তার মানে এই নয় যে ৬০ দিন থেকে টিকেট নিবেন।
৪। সমাধান কি?
যদি ইকামার মেয়াদ থেকে থাকে তাহলে স্পন্সর এক হাজার রিয়াল জরিমানা দিয়ে পুনরায় এক্সিট ভিসা ইস্যু করতে পারবেন।
আর ইকামার মেয়াদ না থাকলে মহা ফেসাদে ফেসে যেতে হয়। পূনরায় ইকামা রিনিউ করে এক হাজার রিয়াল জরিমানা দিয়ে ফাইনাল এক্সিট ভিসা ইস্যু করতে হবে। ইকামা ফি বেশি হওয়ায় কফিল বা তিনি যদি ইকামা করতে না চান তাহলে ঝামেলার শুরু। নিয়ম অনুযায়ী তিনি নির্দিষ্ট সময়ে সৌদি ত্যাগ না করায় অবৈধ হিসেবে বিবেচিত হবেন। অবৈধ বিধায় তাকে দূতাবাসের সুপারিশ পত্র দিয়ে ওয়াফেদীন তথা সফর জেলে/ ডিপোর্টেশনে প্রেরণ করলে তারা তাকে এক্সেপ্ট করেনা। বলে মাকতাব আমল বা লেবার অফিসের ক্লিয়ারেন্স নিয়ে আসতে। মাকতাব আমলে আবেদন দিলে তারা একসেপ্ট করে এই মর্মে যে তাকে ফাইনাল এক্সিট দেয়ায় লেবার অফিসের আর কোন এখতিয়ার নেই। এভাবে ঝুলতে থাকে। অবশেষে তিনি অবৈধ হিসেবে ডিপোর্টেশনে থেকে সৌদি ত্যাগ করেন। কিছু ব্যাতিক্রমও আছে, অসুস্থ ইত্যাদি কেইস। সেসব কেইসেও প্রচুর জরিমানা গুনতে হয়। ইকামা রিনিউ না করে ওয়াফেদীনের মাধ্যমে দেশে গেলে অবৈধ হিসেবে যাবেন, এবং আর কখনোই সৌদিতে প্রবেশ করতে পারবেন না।

তাই ফাইনাল এক্সিট ভিসা ইস্যু হলে বিলম্ব না করে দ্রূত সৌদি ত্যাগ করুন।

লেখাঃ মামুনুর রশিদ( স্যার) দূতাবাস কর্মকর্তা।
রিয়াদ সৌদি আরব

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD