1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
ভাষা সৈনিক ও চমেক সাবেক উপ-পরিচালক ডা. শামসুদ্দিন চৌধুরী আর নেই - DeshBarta
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
রামগড়ে প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম শুভ জন্ম দিন পালন বাঁশখালীতে প্রাইভেট কারে ইয়াবা:গ্রেপ্তার-৪ পবিপ্রবিতে ছাত্রলীগের নানা আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপন দক্ষিনাঞ্চের স্বপ্নের পায়রা সেতু খুলে দিলে বন্ধ হয়ে যাবে ফেরি চলাচ্ল। প্রবাসী সমাজ কল্যাণ সমিতি চট্টগ্রামের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপন। বাঁশখালীতে প্রধানমন্ত্রীর ৭৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের এপ্রোচ রোড ম্যানেজমেন্ট বিষয়ক কমিটির সভা অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের ৪১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ গহিরা মাইজপাড়া উত্তর ইউনিট শাখার অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন। পৌর মেয়রের সাথে গাউছিয়া কমিটি রাউজান উপজেলা (উত্তর)’র মত বিনিময়

ভাষা সৈনিক ও চমেক সাবেক উপ-পরিচালক ডা. শামসুদ্দিন চৌধুরী আর নেই

  • সময় সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১
  • ৪০ পঠিত

ভাষা সৈনিক ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সাবেক উপ-পরিচালক ও প্যাথলজি বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডাঃ এ.জে.এম শামসুদ্দিন চৌধুরী আর নেই। চট্টগ্রাম জামালখান এলাকার বাসিন্দা ও উত্তর মাদার্শার কৃতিসন্তান ডাঃ শামসুদ্দিন চৌধুরী ২৫শে জুলাই রাত ১১ টা ১৫ মিনিটে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। তিনি স্ত্রী, এক পুত্র, পুত্রবধূ, কন্যা, জামাতা সহ ৪ নাতি-নাতনি ও অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর স্ত্রী জনাব নিলুফার শামসুদ্দিন চট্টগ্রাম মহিলা কলেজের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপিকা ও লেখিকা ছিলেন।

নোবেল বিজয়ী ডঃ মোহাম্মদ ইউনূসের সতীর্থ ডা. শামসুদ্দিন ১৯৫৫ সালে চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়ে চট্টগ্রাম কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করেন। পরবর্তীতে তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ থেকে এম.বি.বি.এস পাশ করেন ।
তিনি ছিলেন একজন দেশপ্রেমী ভাষাবিদ। ১৯৫২ সালের ২২ শে ফেব্রুয়ারি তিনি চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুলের বেশকিছু ছাত্রসহ চট্টগ্রাম লালদীঘি মাঠে প্রথম চট্টগ্রাম থেকে ভাষা আন্দোলনে নির্বিচারে হত্যাযজ্ঞের জন্য প্রতিবাদ জানায় ও মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। পেশাগত জীবনে তিনি একজন স্বনামধন্য চিকিৎসক ছিলেন। তিনি ছিলেন অত্যন্ত পরোপকারী একজন মানুষ, যিনি নিজের পকেট থেকে গাড়ি ভাড়া খরচ করে রোগী দেখতে যেতেন। আত্মীয়-স্বজন বা পরিচিতজনদের কাছ থেকে কখনো ভিজিট নিতেন না। তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ডেপুটি ডিরেক্টর ও প্যাথলজি বিভাগের প্রধান ছিলেন। পরিবারের সকলে তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন।
সোমবার দুপুরে চট্টগ্রামের জামাল খান বাইলেইনের শতদল ক্লাবের সামনে একদফা এবং পরে হাটহাজারী উত্তর মার্দাশা এলাকায় দ্বিতীয় দফা জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। জানাজার চট্টগ্রামের বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD