1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
বিশ্ব শিক্ষক দিবসে প্রতিটি শিক্ষকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই.মুহাম্মদ মুসা - DeshBarta
মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৬:০১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
জোবায়েত হাসান পটিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মনোনীত রাউজানে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা সপ্তাহ ‘২২ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জে বন‍্যাদুর্গতদের মাঝে বঞ্চিত নারী ও শিশু অধিকার ফাউন্ডেশনের ত্রাণ বিতরণ মলম পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্বান্ত কাতার প্রবাসী। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির জরুরী সভায় আবুল হাশেম বক্কর। দুমকিতে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও আনন্দ মিছিল ২১ খালের ও ১১ প্রকল্প নিয়ে চসিক মেয়রের মন্তব্য। নেত্রকোণা জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে খালিয়াজুরীতে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ চন্দনাইশে ক্ষুদ্র প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বীজ-সার বিতরণ চন্দনাইশে মাদকের অপব্যবহার ও পাচাররোধে র‌্যালী-আলোচনা সভা

বিশ্ব শিক্ষক দিবসে প্রতিটি শিক্ষকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই.মুহাম্মদ মুসা

  • সময় মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর, ২০২১
  • ১৩৫ পঠিত

আজ বিশ্ব শিক্ষক দিবস। এইদিনে আমার প্রাণপ্রিয় শিক্ষকবৃন্দকে জানাই শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা। অনেকে আজ আমাদের মাঝে নেই তাদের মহান আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করছি। পৃথিবীর আলো, অন্ধকারে বাতিঘর এবং যে আশা আমাদের বেঁচে থাকার শক্তি দেয়,তাহারা হলেন আমাদের শ্রদ্ধেয় শিক্ষক গুরু।শিক্ষকরা আমাদের সমাজের মেরুদণ্ড।পরিবারের পরই আমাদের শিক্ষার হাতেখড়ি হয় শিক্ষকের কাছে। একজন শিক্ষক আমাদের শুধু পাঠ্যপুস্তকের শিক্ষাই দেননা,পরিপূর্ণ মানুষ হতে শেখান। তারা ছাত্রদের ব্যক্তিত্ব গঠনের মাধ্যমে তাদেরকে দেশের আদর্শ নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলে।শিক্ষার্থী ও জাতির বৃদ্ধি, বিকাশ ও কল্যাণের উপর যেভাবে বিরাট প্রভাব পড়ছে, অবশ্যই একমত হতে হবে যে শিক্ষকতা একটি মহৎ পেশা।একটি কথা আছে যে শিক্ষকরা পিতামাতার চেয়ে বড়। বাবা -মা একটি সন্তানের জন্ম দেন যেখানে শিক্ষকরা সেই শিশুর ব্যক্তিত্বকে গঠন করে এবং একটি উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ প্রদান করে। শিক্ষাবিদ ছাড়াও, শিক্ষকরা প্রতি পদে পদে আমাদের পাশে দাঁড়ান, ভালো মানুষ হওয়ার জন্য বিদ্যার প্রয়োগ ও অনুপ্রেরণা দিতে। শিক্ষকদের অবস্থান আলাদা করে তুলে ধরে,তাঁদের সম্মান দেখাতে এ দিনটি পালন করা হয়।
তাইতো কাজী কাদের নেওয়াজ বলেছেন –
বাদশাহ্ কহেন, ”সেদিন প্রভাতে দেখিলাম আমি দাঁড়ায়ে তফাতে
নিজ হাতে যবে চরণ আপনি করেন প্রক্ষালন,
পুত্র আমার জল ঢালি শুধু ভিজাইছে ও চরণ।
নিজ হাতখানি আপনার পায়ে বুলাইয়া সযতনে
ধুয়ে দিল না’ক কেন সে চরণ, স্মরি ব্যথা পাই মনে।

পৃথিবীর সকল দেশের শিক্ষক সমাজের নিকট এ দিনটি অত্যন্ত গৌরব ও মর্যাদার । তবে শিক্ষক দিবস পালনের ইতিহাস খুব বেশিদিন আগের নয় । দেশের অগণিত শিক্ষকদের আদর্শগত মহান কর্মকাণ্ডের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাতে এবং তাঁদের পেশাগত অবদানকে স্মরণে বরণে শ্রদ্ধায় পালন করার জন্য সমগ্র বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই মহান শিক্ষক দিবস পালন করার রীতি রয়েছে ।

১৯৯৪ সাল থেকে জাতিসংঘের অঙ্গসংস্থা ইউনেস্কোর উদ্যোগে প্রতিবছর ৫ অক্টোবর এ দিবসটি উদযাপিত হয়। শিক্ষা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে শিক্ষকদের অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ পালিত হয়ে আসছে। বিশ্ব শিক্ষক দিবস পালিত হয় জার্মানি, ইংল্যান্ড, রাশিয়া, রোমানিয়া, সার্বিয়ার মতো কয়েকটি দেশে এই দিনে শিক্ষক দিবস পালন করা হয়। তাছাড়া বিশ্বের ১০০টিরও বেশি দেশে পৃথক পৃথক তারিখে শিক্ষক দিবস পালিত হয়। ২৮ ফেব্রুয়ারি শিক্ষক দিবস পালিত হয় লিবিয়া, মরক্কো, আলজেরিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাতে।আজ সুনির্মল বসুর সবার আমি ছাত্র কবিতাটি মনে পড়লো
বিশ্ব-জোড়া পাঠশালা মোর,
সবার আমি ছাত্র,
নানান ভাবের নতুন জিনিস,
শিখছি দিবারাত্র;
এই পৃথিবীর বিরাট খাতায়
পাঠ্য যে-সব পাতায় পাতায়,
শিখছি সে-সব কৌতূহলে
সন্দেহ নাই মাত্র॥
আমাদের জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে শিক্ষকের প্রভাব কখনো শেষ হয় না। এ কথাটি বিশদভাবে তাৎপর্যপূর্ণ জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে আমাদের প্রাণপ্রিয় শিক্ষকদের প্রভাব উপলব্ধি করতে পারি। শিক্ষকতা হলো এমন একটি পেশা যা অন্যান্য সমস্ত পেশার সৃষ্টি করে।সৃষ্টিশীল প্রকাশ এবং জ্ঞানের মধ্যে আনন্দ জাগ্রত করে ছাত্র-ছাত্রীদের সঠিকভাবে গড়ে তুলেন। যেকোন দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতে পারে এবং সবার মধ্যে সুন্দর মনের মানসিকতা গড়ে তুলতে পারে একজন শিক্ষক। আমি দৃঢ়তার সঙ্গে বিশ্বাস করি সামাজিক জীবনে তিন রকম মানুষ যারা পরিবর্তন আনতে পারেন দেশ সমাজরাষ্ট্রের
তারা হলেন আমাদের পিতা, মাতা ও একজন শিক্ষক।একজন শিক্ষক সামগ্রিকভাবে প্রভাব ফেলে, কেউ বলতে পারে না উনাদের প্রভাব কোথায় গিয়ে শেষ হয় আমরা কেউ বলতে পারি না।একটি বই, একটি কলম, একটি শিশু এবং একজন শিক্ষক বিশ্বকে পরিবর্তন করতে পারে এটি এক অনবদ্য সত্য আমাদের শিক্ষক তারা জ্ঞান এবং প্রজ্ঞার উৎস। তাদের কাছ থেকে ধারনা এবং তত্ত্বের নেতৃত্ব দেয়, যে একদিন জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ব্যবহারে একটি সুখী সুন্দর সমাজ বিনির্মাণে ভূমিকা অনস্বীকার্য।আমাদের প্রাণপ্রিয় শিক্ষকবৃন্দের নিঃস্বার্থ জ্ঞাত বিতরণ নিরলস সেবা এবং গতিশীল দেশ গঠনের সহায়তার জন্য প্রতিটি শিক্ষকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই।আজকের দিনের মত প্রতিটি ক্ষণ সবসময় আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।বিশ্ব শিক্ষক দিবস আলোকবর্তিকা হোক।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD