1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
চন্দনাইশে ভিটা বাড়ীর ভাগভাটোরা নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা - DeshBarta
রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
জমকালো আয়োজনে জিএম আইটির নবীন উদ্যোক্তা সম্মেলন অনুষ্ঠিত সীমান্ত থেকে তুলে নিয়ে বাংলাদেশী কিশোরকে নির্যাতনের পর হত্যা করেছে বিএসএফ দৈনিক আজকের বিজনেস বাংলাদেশ-এ যুক্ত হলো চট্টগ্রাম বিভাগের একঝাঁক মেধাবী সংবাদকর্মী রিক্সা চালক কে মধ‍্যযুগীয় কায়দায় গাছের সাথে বেধেঁ নির্যাতন: পুলিশের হাতে আটক ১ জন।  মাহে রবিউল আউয়াল মাসের গুরুত্ব ও ফজিলত।হাফিজ মাছুম আহমদ দুধরচকী। মাদক বিক্রিতে বাঁধা দেওয়ায় পুলিশের সোর্স পরিচয় দানকারী দুলাল মিথ্যা অভিযোগ করে হয়রানি করছে বলে জানায় মিরপুরবাসী বঞ্চিত নারী ও শিশু অধিকার ফাউন্ডেশন কুড়িগ্রাম রাজারহাট উপজেলা শাখা কমিটি অনুমোদন সন্দ্বীপে এক হাজার বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন এসোসিয়েশন অব এলিয়েন্স চট্টগ্রাম ক্লাব এর উদ্যোগে সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ রাহবার মনে পড়ে তুমায়!—হাফিজ মাছুম আহমদ দুধরচকী

চন্দনাইশে ভিটা বাড়ীর ভাগভাটোরা নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা

  • সময় শুক্রবার, ৮ অক্টোবর, ২০২১
  • ৭৬ পঠিত

চন্দনাইশ প্রতিনিধিঃ
চন্দনাইশে বরকল পাঠানদন্ডী মজু চৌকিদার বাড়ী এলাকায় পারিবারিক বাড়ী ভিটের ভাগভাটোয়ারা নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা বিরাজ করছে। ফলে যে কোন মুর্হুতে হতে পারে বড় ধরণের দূর্ঘটনা। গত ২৫ সেপ্টেম্বর এক সংঘর্ষের আহত হওয়ার ঘটনায় হাবিবুল ইসলাম হৃদয় বাদী হয়ে ৩জনের নাম উল্লেখসহ ১০/১২জনকে অজ্ঞাতনামা করে চন্দনাইশ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।
দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, হাবিবুর রহমান ও তার প্রতিপক্ষ মোঃ মাঈন উদ্দীনের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বাড়ী ভিটের ভাগভাটোয়ারা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি প্রতিপক্ষের লোকজন হাবিবুর রহমানে ঘর-বাড়ী ভাংচুর ও উচ্ছেদ করার চেষ্টাসহ বসতঘরের টিন খোলে পেলে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৫ সেপ্টেম্বর দুপুরে বাড়ীর টিউবলের পাশে ময়লা আবর্জনা পরিস্কার করতে গেলে প্রতিপক্ষের লোকজন অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। এসময় প্রতিবাদ করায় প্রতিপক্ষের লোকজন লোহার রড,লাটি-সোটা ও কিল,ঘুষি মেরে হাবিবুর রহমান (৩৭) ও তার মা সাইরা খাতুন (৭৫) আহত করে। তাদের সৌরচিৎকারে স্থানীয়রা উদ্ধার করে চন্দনাইশ হাসপাতালে নিয়ে যায়। এদিকে চন্দনাইশ থানার উক্ত অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা এসআই অজয় বলেন, উভয়পক্ষকে থানায় ডাকা হলেও বৈঠকে কেউ আসেনি। তবে বাদী ফোন করে জানিয়েছেন তারা মিমাংশা করে পেলেছেন। অন্যদিকে অভিযোগের বাদী বলেন, উক্ত ঘটনায় থানায় অভিযোগ করলেও উক্ত তদন্তকারী কর্মকর্তা বিবাদীর পক্ষ নিয়ে কালক্ষেপন করে মিমাংশার বৈঠকে বসেননি। ফলে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা বিরাজ করছে। উক্ত ঘটনার বিবাদী মাঈন উদ্দীন বলেন, সামান্য তুচ্ছ ঘটনার কথা স্বীকার করে বলেন, স্থানীয়ভাবে উভয়পক্ষের মাধ্যমে মিমাংশা করা হয়েছে। তবে তাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পন্ন মিথ্যা।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD