1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
চন্দনাইশে সাতবাড়িয়া নাজিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে হিজাব নিষিদ্ধের অভিযোগ। - DeshBarta
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
চন্দনাইশে বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা ফুটবল গোল্ডকাপ টুর্নামেন্ট ফাইনাল সম্পন্ন জননেতা মরহুম জহুর আহমেদ চৌধুরী ইতিহাসের অংশ – তসলিম উদ্দিন রানা এশিয়ান আবাসিক স্কুল ফুটবল টুর্নামেন্টে কর্ণফুলী দল চ্যাম্পিয়ন পটিয়ায় নবাগত ইউনও’র সাথে খলিলুর রহমান মহিলা ডিগ্রী কলেজ শিক্ষকদের শুভেচ্ছা বিনিময়। চট্টগ্রাম ফয়েসলেকে উদ্বোধন হলো সেলুন পাঠাগার বিশ্বজুড়ে চন্দনাইশে আহমদ ছফার জন্মদিন পালন জোবায়েত হাসান পটিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মনোনীত রাউজানে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা সপ্তাহ ‘২২ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জে বন‍্যাদুর্গতদের মাঝে বঞ্চিত নারী ও শিশু অধিকার ফাউন্ডেশনের ত্রাণ বিতরণ মলম পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্বান্ত কাতার প্রবাসী।

চন্দনাইশে সাতবাড়িয়া নাজিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে হিজাব নিষিদ্ধের অভিযোগ।

  • সময় মঙ্গলবার, ১ মার্চ, ২০২২
  • ৪১ পঠিত

ইসমাইল ইমন চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার সাতবাড়িয়া নাজিরহাট বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণির কয়েকজন ছাত্রী বোরকা ও নেকাব পড়ে ক্লাশে আশায় অশ্লীল মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে ঐ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রবিবার দশম শ্রেণির ইংরেজি প্রথম পত্র ক্লাসে এ ঘটনা ঘটলে ২৮ ফেব্রুয়ারি বিষয়টি গড়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিসে। এদিন বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী জান্নাতুল মাওয়া, রিপা আকতার, কলি আকতার,জান্নাতুল নাঈম ও এ্যাভি আকতার বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেন।বিষয়টি মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রতন কুমার সাহাকে তদন্তের জন্য দেয়া হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, ঐ দিন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রতন কুমার বড়ুয়া ইংরেজি প্রথম পত্র ক্লাসে কয়েকজন ছাত্রীকে বোরকা ও নেকাব পড়া অবস্থায় দেখলে কেন পড়েছে বলে চিৎকার করে অশ্লীল গালি-গালাজ ও বাজে মন্তব্য করে।ভবিষ্যতে পড়ে আসলে স্কুল থেকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বেড় করে দিবে বলে হুমকি প্রদান করে। এসময় ভুক্তভোগী ছাত্রীদের কান্নায় ক্লাসে উপস্থিত সবাই কান্নায় ভেঙে পড়ে।অভিযোগে ইতিপূর্বে অনেক ছাত্রীদের এ ধরনের হেনস্তা করার কথাও উল্লেখ আছে।
এব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রতন কুমার বড়ুয়া’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান “আমি ক্লাসে গিয়ে দেখি ১৫/২০ জন ছাত্রী বিভিন্ন রঙের বোরকা পড়ে আসে,তাদের বলি ক্লাসে বোরকা যেন স্কুল ড্রেসের সাথে মিলিয়ে পড়ে”। এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রতন
কুমার সাহা জানান ” বিষয়টি সঠিকভাবে তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদান করবো দ্রুত সময়ে।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD