1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
ডাচ্ বাংলা 'ফাস্ট ট্র্যাকে' গ্রাহক ভোগান্তি চরমে - DeshBarta
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৪:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
চন্দনাইশে বঙ্গবন্ধু বঙ্গমাতা ফুটবল গোল্ডকাপ টুর্নামেন্ট ফাইনাল সম্পন্ন জননেতা মরহুম জহুর আহমেদ চৌধুরী ইতিহাসের অংশ – তসলিম উদ্দিন রানা এশিয়ান আবাসিক স্কুল ফুটবল টুর্নামেন্টে কর্ণফুলী দল চ্যাম্পিয়ন পটিয়ায় নবাগত ইউনও’র সাথে খলিলুর রহমান মহিলা ডিগ্রী কলেজ শিক্ষকদের শুভেচ্ছা বিনিময়। চট্টগ্রাম ফয়েসলেকে উদ্বোধন হলো সেলুন পাঠাগার বিশ্বজুড়ে চন্দনাইশে আহমদ ছফার জন্মদিন পালন জোবায়েত হাসান পটিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মনোনীত রাউজানে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা সপ্তাহ ‘২২ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জে বন‍্যাদুর্গতদের মাঝে বঞ্চিত নারী ও শিশু অধিকার ফাউন্ডেশনের ত্রাণ বিতরণ মলম পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্বান্ত কাতার প্রবাসী।

ডাচ্ বাংলা ‘ফাস্ট ট্র্যাকে’ গ্রাহক ভোগান্তি চরমে

  • সময় শুক্রবার, ৮ এপ্রিল, ২০২২
  • ২৯ পঠিত

ইসমাইল হোসেন চৌধুরী

মহানগর প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম
চট্টগ্রাম নগরীতে সম্প্রতি গ্রাহক ভোগান্তির নতুন ফাঁদে পরিণত হয়েছে ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের ‘ফাস্ট ট্র্যাক’গুলো। এসব ‘ফাস্ট ট্র্যাক’ ২৪ ঘন্টা খোলা থাকার প্রচারণা থাকলেও গ্রাহকদের চোখ ফাঁকি দিয়ে নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে সন্ধ্যা ৭ টার পর থেকে সীমিত করা হয় এ সুবিধা। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের গ্রাহকরা।

‘ফাস্ট ট্র্যাক’গুলো সপ্তাহে ৭ দিন, ২৪ ঘন্টা খোলা থাকার প্রচারণা চালিয়ে মূলতঃ গ্রাহক আকৃষ্ট করে ডাচ্ বাংলা ব্যাংক। প্রতিটি ফাস্ট ট্র্যাকে ৬ থেকে ১২ টি বুথ থাকলেও নগরীতে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭ টা থেকে সকাল পর্যন্ত সব বুথগুলো বন্ধ রেখে চালু রাখা হচ্ছে ১টি মাত্র বুথ। এতে সন্ধ্যায় টাকা তুলতে এসে দীর্ঘ লাইনে ভোগান্তিতে পড়ছেন কর্মজীবী সাধারণ গ্রাহকরা।

ফাস্ট ট্র্যাকে লেনদেন করতে আসা গ্রাহকরা জানান, ২৪ ঘন্টা ‘ফাস্ট ট্র্যাক’ সুবিধার প্রচারণা দেখে মূলতঃ তাঁরা ডাচ্ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট করেছেন। কিন্তু এখন তাঁদের সাথে প্রতারণা করছে ব্যাংটি। দিন-রাত ২৪ ঘন্টা তাঁরা ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড দিয়ে টাকা তুলতে পারছেন না। কেবলমাত্র দিনের বেলায় খোলা থাকছে এসব ‘ফাস্ট ট্র্যাক’। সন্ধ্যা ৭ টার পর থেকে সারারাত বন্ধ রাখা হচ্ছে এ সুবিধা। এসময় প্রতিটি ‘ফাস্ট ট্র্যাকে’ কেবলমাত্র ১টি বুথ চালু রাখা হচ্ছে। বাকি বুথগুলো বন্ধ থাকছে। এতে সন্ধ্যায় টাকা তুলতে আসা গ্রাহকদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে ঘন্টার পর ঘন্টা। বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন নারী গ্রাহকরাও।

অন্যদিকে ব্যাংক সূত্র জানিয়েছে, দিনের বেলায় ‘ফাস্ট ট্র্যাকে’ গ্রাহকদের দীর্ঘ লাইন থাকেনা। গভীর রাতেও ফাঁকা থাকে ‘ফাস্ট ট্র্যাক’। সবাই কেবল সন্ধ্যা হলে ভিড় জমায়। এতদিন পর্যন্ত ২৪ ঘন্টা চালু ছিলো এ সুবিধা। সম্প্রতি নিরাপত্তার কারণে সন্ধ্যার পর এ সুবিধা সীমিত রাখার বিষয়ে ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

গ্রাহকদের অভিযোগ, তাঁরা সারাদিন চাকরি করেন। দিনের বেলায় ব্যাংকে যাওয়ার সময় পাননা। অফিস ছুটির পর সন্ধ্যায় তাঁরা ‘ফাস্ট ট্র্যাকে’ টাকা তুলতে আসেন। এসময় তাঁরা দেখেন, ‘ফাস্ট ট্র্যাকে’র সামনে গ্রাহকদের দীর্ঘ লাইন। এই লাইন দেখে অনেকে টাকা না তুলে ফিরে যান। অনেকে নিরুপায় হয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে যান। ভোগান্তি মাথা পেতে নেন। তাই সন্ধ্যা বেলা ‘ফাস্ট ট্র্যাকে’র সব বুথগুলো চালু রাখার দাবি জানিয়েছেন গ্রাহকরা।

বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল, ২০২২ ইং) সন্ধ্যায় সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা যায়, চট্টগ্রাম নগরীর বহদ্দারহাট ও জিইসি মোড় এলাকার ডাচ্ বাংলা ‘ফাস্ট ট্র্যাকে’র সামনে টাকা তুলতে আসা গ্রাহকদের দীর্ঘ লাইন। লাইনে দাঁড়িয়ে অনেকে বিরক্ত প্রকাশ করছেন। অনেকে দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার পর টাকা না তুলে ফিরে যাচ্ছেন।

লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা আব্দুর রহমান নামে একজন গ্রাহক অভিযোগ করে বলেন, ‘প্রায় ৪৫ মিনিট ধরে দাঁড়িয়ে আছি। এখনো সিরিয়াল পাচ্ছিনা। গতকালকেও একবার এসে ভীড় দেখে ফিরে যেতে হয়েছে। আজকে আবার আসলাম। সন্ধ্যা হলেই তাঁরা একটি বুথ চালু রেখে বাকি বুথগুলো বন্ধ করে দেন। ফলে আমাদের সমস্যা হয়। টাকা তুলতে সময় লাগে বেশি।’

নাছিমা আক্তার নামে একজন নারী গার্মেন্টস কর্মী (ব্যাংকের গ্রাহক) বলেন, ‘আমাদের গার্মেন্টস ছুটি হয় সন্ধ্যা ছয়টায়। তাই ৭ টার পর আমরা টাকা তুলতে আসি। এসেই দেখি দীর্ঘ লাইন। সব বুথগুলো চালু থাকলে আমাদের এতো সমস্যা হতোনা।’

নাছিমা আরো জানান, ‘প্রতি মাসের ৫ থেকে ১০ তারিখের মধ্যে এ সমস্যাটা বেশি দেখা যায়। যখন কর্মজীবীরা বেতন পান, তখন টাকা তুলতে সবাই ভীড় করেন। আর এসময় বিশেষ করে আমাদের মতো নারী গ্রাহকদের দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে বেশি বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়।’

গ্রাহক সূত্রে জানা যায়, ডাচ্ বাংলা ব্যাংক নগরীর প্রতিটি তিন রাস্তার মোড়ে মোড়ে এক একটি ফাস্ট ট্র্যাক স্থাপন করে গ্রাহকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। তাঁরা প্রচারণা চালায়, ২৪ ঘন্টা জুড়ে টাকা তুলার সুবিধার কথা। ব্যাংকটিতে শাখা কম, ফাস্ট ট্র্যাক বেশি। এতে কম বিনিয়োগে বেশি লাভের কৌশল নিয়ে আগাচ্ছে ব্যাংটি। কিন্তু ২৪ ঘন্টা সুবিধার কথা প্রচার থাকলেও তা নিয়ে সম্প্রতি প্রতারণার আশ্রয় নিচ্ছে বলে গ্রাহকদের অভিযোগ।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে ব্যাংকটির প্রধান কার্যালয়ের কাস্টমার সার্ভিস বিভাগের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার জনাব সুবির দত্ত বলেন, ‘সম্প্রতি এ সংক্রান্ত কিছু দূর্ঘটনা ঘটায় নিরাপত্তার কারণে এ সুবিধা সীমিত করা হয়েছে। সন্ধ্যা ৭ টার পর থেকে সকাল পর্যন্ত সীমিত আকারে চালু থাকবে। তবে, দিনের বেলায় পূর্ণাঙ্গ সেবা পাবেন গ্রাহকরা।’

গ্রাহকদের ভোগান্তির বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে সুবির দত্ত জানান, ‘বিষয়টি আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাব। দেখি, এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়া যায় কিনা।’

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD