1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
নাছির-নওফেল কার আদর্শের সৈনিক, তাঁদের নামে আলাদা ম্লোগান কেন?- প্রশ্ন নিখিলের - DeshBarta
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৩:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
জোবায়েত হাসান পটিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মনোনীত রাউজানে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা সপ্তাহ ‘২২ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জে বন‍্যাদুর্গতদের মাঝে বঞ্চিত নারী ও শিশু অধিকার ফাউন্ডেশনের ত্রাণ বিতরণ মলম পার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্বান্ত কাতার প্রবাসী। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির জরুরী সভায় আবুল হাশেম বক্কর। দুমকিতে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও আনন্দ মিছিল ২১ খালের ও ১১ প্রকল্প নিয়ে চসিক মেয়রের মন্তব্য। নেত্রকোণা জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে খালিয়াজুরীতে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ চন্দনাইশে ক্ষুদ্র প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বীজ-সার বিতরণ চন্দনাইশে মাদকের অপব্যবহার ও পাচাররোধে র‌্যালী-আলোচনা সভা

নাছির-নওফেল কার আদর্শের সৈনিক, তাঁদের নামে আলাদা ম্লোগান কেন?- প্রশ্ন নিখিলের

  • সময় সোমবার, ৩০ মে, ২০২২
  • ২৫ পঠিত

ইসমাইল হোসেন চৌধুরী

নাছির-নওফেল কার আদর্শের সৈনিক? উনারা কার আদর্শ বুকে ধারণ করেন? উনাদের নাম বললে আলাদা আলাদা শ্লোগান হয় কেন? চট্টগ্রাম নগর যুবলীগের সম্মেলনে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে এসব প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মইনুল হোসেন খান নিখিল।

সোমবার (৩০ মে) দুপুরে নগরের দি কিং অব চিটাগাং-এ চট্টগ্রাম নগর যুবলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্যে এসব প্রশ্ন করেন তিনি।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে নিখিল বলেন, নওফেল ভাই ও নাছির ভাই ঐক্যের ডাক দিয়েছেন। আমি কষ্ট পাই, আমার চেয়ারম্যানসহ নেতৃবৃন্দ কষ্ট পায়, কী কারণে জানেন? যদি উনারা শেখ হাসিনার সৈনিক হন, তাহলে উনাদের নাম বললেই আলাদা আলাদাভাবে স্লোগান হয় কেন? কীসের ঐক্যের ডাক? এটা ঐক্যের ডাক হতে পারে না।

এসময় প্রশ্ন করে তিনি বলেন, আমরা কি শেখ হাসিনার সৈনিক, বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করেছি? তাহলে নাছির ভাই, নওফেল ভাই কার আদর্শ ধারণ করেছে?

প্রধান বক্তার বক্তব্যে সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল আরো বলেন, নেতাদের মধ্যে যদি ঐক্যের সৃষ্টি না হয় তাহলে কর্মীদের মাঝে ঐক্য আসার কোনো সুযোগ নেই। ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। ঐক্য না থাকলে বিএনপি জামায়াত নতুন করে ষড়যন্ত্রের সুযোগ পাবে।

তিনি বলেন, চট্টগ্রামের নেতাকর্মীদের মধ্যে ঐক্য দেখা যায় না। যদি নেতা কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ থাকতো তাহলে বিএনপি জামায়াত ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত এই বাংলায় যে তাণ্ডবলীলা চালিয়েছিল, সেদিন যদি চট্টগ্রামের নেতারা ঐক্যবদ্ধ থাকতেন তাহলে তাদের প্রতিরোধ করতে এই নেতৃত্বই যথেষ্ট ছিল।

তিনি বলেন, বিএনপি জামায়াত চট্টগ্রামের মাটিতে মা-বোনের ইজ্জত নিয়ে ছিনিমিনি খেলেছে নৌকায় ভোট দেওয়ার অপরাধে। আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের হাত পা কেটে দিয়েছিল। চোখ উপড়ে ফেলেছিল। পঙ্গু করে দিয়ে ব্যবসা বাণিজ্য কেড়ে নিয়েছিল। এমনকি গোয়ালের গরু থেকে শুরু করে পুকুরের মাছ, গাছপালা কেটে পরিষ্কার করে ফেলেছিল।

এর আগে দুপুর ১২টায় বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এবং দলীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ ১৯ বছর পর অনুষ্ঠিত হচ্ছে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন। সম্মেলনে ৭৯৫ জন কাউন্সিলর অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে অতিথিসহ প্রায় ১০ হাজার মানুষ অংশ নিয়েছেন।

২০০৩ সালে সর্বশেষ এ সম্মেলনের মাধ্যমে নগর যুবলীগের কমিটি গঠন করা হয়। এবার কমিটির দুই শীর্ষপদের জন্য ১০৭ জন আবেদন করেছেন। এরমধ্যে সভাপতি পদে ৩৫ জন আর সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য ৭২ জন আবেদন করেছেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD