1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
খাগড়াছড়িতে সহকারী শিক্ষা অফিসারের ঘুষিতে রক্তাক্ত নারী শিক্ষক - DeshBarta
মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৬:৪৮ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
বেঁচে আছি যতদিন, মানবসেবায় আছি ততদিন” জামালপুর সদরের কেন্দুয়া ইউনিয়ন পরিষদের কোটি টাকার ভবনে ভাঙ্গন! আতঙ্কের ঝুকি নিয়ে অফিস রাসূল (সা.)সারা জাহানের জন্য রহমত স্বরূপ। হাফিজ মাছুম আহমদ দুধরচকী। কুমারী পূজা দেখার জন্য জগদীশ্বরী কালি মন্দিরের মণ্ডপে ভক্তদের ঢল হাতিয়ায় গৃহকর্মীকে ধর্ষণ, আটক ১ জামালপুরের নান্দিনায় মা-মেয়ে খুনের প্রধান আসামি নিপুলের গ্রেফতারের দাবীতে জনসাধারণের সড়ক অবরোধ। লক্ষীছড়ি জিরো পয়েন্ট হবে মনিকা চত্বর ; তৈরী হবে মনিকা চাকমার ম্যুরাল চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার পূজামণ্ডপ পরিদর্শন জেলা প্রশাসকের – সার্বিক প্রস্তুতিতে সন্তোষ প্রকাশ চকরিয়া পৌরসভা পূজামন্ডপে অনুদান প্রদান সাংবাদিক ইলিয়াছ আরমানের মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে চকরিয়া উপজেলা প্রেস ক্লাবের মানববন্ধন

খাগড়াছড়িতে সহকারী শিক্ষা অফিসারের ঘুষিতে রক্তাক্ত নারী শিক্ষক

  • সময় বুধবার, ১৭ আগস্ট, ২০২২
  • ২৬ পঠিত

প্রতিনিধি, খাগড়াছড়ি :

খাগড়াছড়িতে সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার সুভায়ন খীসার বিরুদ্ধে এক নারী প্রধান শিক্ষককে মেরে রক্তাক্ত করার অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (১৬ আগষ্ট) সকালের দিকে সুভায়ন খীসার কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহত প্রধান শিক্ষক মৌসুমী ত্রিপুরা খাগড়াছড়ি সদও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তিনি খাগড়াছড়ি জেলা সদরের মহালছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন।

মৌসুমী ত্রিপুরা অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের বাউন্ডারী দেয়ালের গেইট নড়বড়ে অবস্থায় আছে। বিষয়টি লিখিতভাবে জানানোর জন্য সহকারী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সুভায়ন খীসার অফিসে গেলে ক্ষোভ দেখিয়ে তেড়ে এসে আমার গায়ে হাত তোলেন। তাঁর কিল ঘুষিতে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে অজ্ঞান হয়ে গেলে পরে অফিসের অন্যরা আমাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে। আহত শিক্ষকের মুখে ও চোখে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

খাগড়াছড়ি আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. মিথিলা বড়ুয়া বলেন, তাঁর বা চোখের নিচে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। সেখানে দুটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। অবজারভেশনে রাখতে তাকে ভর্তি নিয়ে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে।

অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষা অফিসার সুপায়ন খীসা বলেন, আমি তাঁকে (শিক্ষিকা) কিল ঘুষি মারিনি। তাঁর বেপরোয়া কথাবর্তার কারনে তাকে সরিয়ে দিতে ধাক্কা দিয়েছি। তখন সে দরজায় আঘাত পেয়ে পড়ে যায়।

এদিকে, ঘটনার খবর শুনে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত শিক্ষিকাকে দেখতে আসেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন সহ সংশ্লিষ্টরা। খাগড়াছড়ি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ফাতেমা মেহের ইয়াসমিন বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD