1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. salehbinmonir@gmail.com : News Editor : News Editor
পটুয়াখালী জেলা পরিষদ নির্বাচনে আলোচনায় আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি সুলতান মৃধা। - DeshBarta
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
দাকোপের বিভিন্ন জলাশয়ে মাছের পোনা অবমুক্তিকরণ চট্রগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগ নেতা মাহামুদুর রহমান চৌধুরী নয়নের নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন পালন চন্দনাইশে আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস পালিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন উদযাপন করেছেন বোয়ালখালী উপজেলা আওয়ামী লীগ গৃহহীনকে ঘর করে দিলেন যুবলীগ নেতা পুলিশ ও পল্লী বিদ‍্যুৎ এর কর্মকর্তারা অভিযান চালিয়ে মোট ১২ টি ট্রান্সফর্মার উদ্ধার  বৃক্ষ পরিচর্যার সচেতনতা বৃদ্ধিতে দূর্বার তারুণ্য”র ‘আমরা মালি’ মাটিরাঙ্গায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন উদযাপন ১০ বিভাগীয় শহরে গণ-সমাবেশের ঘোষণা বিএনপির চকরিয়ায় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আত্মপ্রত্যয়ী’র দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

পটুয়াখালী জেলা পরিষদ নির্বাচনে আলোচনায় আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি সুলতান মৃধা।

  • সময় মঙ্গলবার, ৩০ আগস্ট, ২০২২
  • ২৭ পঠিত

এস আল-আমিন খাঁন পটুয়াখালী।

আসন্ন পটুয়াখালী জেলা পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি, সাবেক সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক পৌরসভা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এ্যাড. মোঃ সুলতান আহমেদ মৃধা। জেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসীল ঘোষনা করায় বঙ্গবন্ধু কন্যা বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আন্তরিক শুভেচ্ছা অভিনন্দন জানিয়েছেন।

দলের সকল পর্যায়ের নেতা ও কর্মীদের কাছে সুলতান আহমেদ মৃধা দলের একজন সৎ, যোগ্য, শিক্ষিত, বিচক্ষন, ত্যাগী ও পরিশ্রমী নেতা হিসেবে পরিচিত। বিগত দিনের বিভিন্ন নির্বাচন পর্যালোচনা করলে দেখা যায় ভোটের রাজনীতিতে পটুয়াখালীতে অনেকের চেয়ে এগিয়ে আছেন এ্যাড. মোঃ সুলতান আহমেদ মৃধা। জেলায় তাকে সবাই জনবান্ধব নেতা হিসেবে চেনেন। সকলের সাথে সদালাপি এবং সুখে দুঃখে সব সময় সকলের পাশে থাকেন। তিনি দলীয় মনোনয়ন পেলে পূর্বের তুলনায় জেলা পরিষদের মাধ্যমে জেলায় সার্বিক উন্নয়ন হবে বলে মনে করেন দলীয় নেতা-কর্মী সহ সাধারন জনগন। শিক্ষা জীবন থেকেই বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাথে সমৃক্ত হয় ১৯৬৬ সালে ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে অধ্যয়নরত অবস্থায় ছাত্রলীগের সাথে জড়িত হয়। এরপর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে ১৯৭১ সালে জীবন বাজী রেখে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পরছিলেন তিনি। ১৯৭৩ সনে পটুয়াখালী সরকারী কলেজ ছাত্র সংসদ নির্বাচনে ছাত্রলীগ প্যানেল থেকে সাহিত্য ও সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক ১৯৯৪ সনে পটুয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগে অন্তর্ভূক্ত হয়ে আজ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শেও উপর অটল থেকে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

সুলতান আহমেদ মৃধা ১৯৭০ সনে যশোর বোর্ডের অধীনে পটুয়াখালী লতিফ মিউনিসিপ্যাল সেমিনারী থেকে এস,এস,সি পাশ, ১৯৭২ সনে পটুয়াখালী সরকারী কলেজ থেকে এইচ,এস,সি, ১৯৭৪ সনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন পটুয়াখালী সরকারী কলেজ থেকে বি,এ, ১৯৭৬ সনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (হাজী মোহাম্মদ মহসীন হল) থেকে এম, এ, ১৯৭৮ সনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (সেন্ট্রাল ‘ল’ কলেজ, ঢাকা) থেকে ‘ল’ পাশ করেন।

বর্তমানে সক্রিয় ও নিবেদিত হয়ে পটুয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। প্রতিনিয়ত দলীয় ও সরকারী কর্মসূতিতে রয়েছে তার প্রাণবন্ত উপস্থিতি। তার রাজনৈতিক জীবনে সফলতা ও সচ্ছতার সাথে ১৯৯৩ সন থেকে ১৯৯৯ সন পর্যন্ত পৌরসভা চেয়ারম্যান, ২০০৯ সন থেকে ২০১৪ সন পর্যন্ত সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। প্রাথমিক শিক্ষায় অবদানের জন্য ২০১২ সালে জেলায় শ্রেষ্ঠ উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার রাজনৈতিক দুরদর্শিতার কারনেই ১০ম জাতীয় সংসদে তার স্ত্রী মিসেস লুৎফুন নেছাকে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত করা হয়। তিনি দলের সিদ্ধান্তের পরিপন্থি কোন কার্যকাপাল করেননি। ১৯৭৩ সন থেকে ১৯৯৯ সন পর্যন্ত সময়ে বরিশাল বিভাগে ৬জন চেয়ারম্যানের মধ্যে ৫জন ছিল বিএনপি থেকে নির্বাচিত শুধু একমাত্র সুলতান আহমেদ মৃধা আওয়ামীলীগ থেকে ব্যাপক ভোটের মাধ্যমে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়। আওয়ামীলীগের রাজনীতি করার কারণে ১৯৯৫ সালে পৌরসভার চেয়ারম্যান থাকাকালিন সময় বিএনপি সরকার তাকে করারুদ্ধ করেছিল। এছাড়াও ২০০১ সালে আলতাফ হোসেন চৌধুরীর সময় মামলা দিয়ে ২মাস ১৪ দিন হাজতবাস করিয়েছে। পটুয়াখালীর সামাজ, শিক্ষা ও সংস্কৃতির উন্নয়নে তার গুরুত্বপূর্ন অবদান রয়েছে। এছাড়াও প্রতিষ্ঠা করেছেন হাজী হামেজ উদ্দিন মৃধা ডিগ্রি কলেজ। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন লোহালিয়া ইসলামিয়া ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসা, পটুয়াখালী টাউন উচ্চ বিদ্যালয়, শহীদ মাহমুদুর রহমান পলাশ বৃত্তি প্রদান ফাউন্ডেশন, হোসাইনিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও চন্দনবাড়ীয়া জামে মসজিদের সভাপতি এবং কার্যকরি কমিটির সদস্য হিসেবে আব্দুল করিম মৃধা কলেজ, উপদেষ্টা হিসেবে টাউন জৈনকাঠী জৈনপুরী হুজুরের খানকায়ে হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও পুরান বাজার জামে মসজিদ মাদ্রাসা কমপ্লেক্সের উন্নয়নে অবর্ননীয় ভূমিকা রেখেছেন। তিনি বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদের পটুয়াখালীর সদস্য, ১৯৯৪ সন থেকে সুইড বাংলাদেশ পটুয়াখালী শাখার সভাপতি, ১৯৯১ সন থেকে বাংলাদেশ বার কাউন্সিল সদস্য, আজীবন সদস্য হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় রেজি: গ্রাজুয়েট সদস্য। রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি পটুয়াখালী ইউনিটের ভাইস-চেয়ারম্যান, পটুয়াখালী ডায়েবেটিক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা ও সহ-সভাপতি, পটুয়াখালী বি,এন,এস,বি চক্ষু হাসপাতাল ও পরিবার পরিকল্পনা সমিতির আজীবন সদস্য। পটুয়াখালী জেলা আইনজীবি সমিতি, আয়কর আইনজীবি সমিতি ও পটুয়াখালী ক্লাবের সদস্য। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এ্যালামনাই এ্যাসোসিয়েশনের আজীবন সদস্য। পটুয়াখালী শেরে-ই-বাংলা বালিকা বিদ্যালয়ের আজীবন দাতা সদস্য। ২০১৫ সন থেকে সিনিয়র সিটিজেন ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন পটুয়াখালী জেলা শাখার সভাপতি হিসেবেও কাজ করে আসছেন সুলতান আহম্মেদ মৃধা।

এছাড়া নিজে প্রকাশক ও সম্পাদকের দায়িত্ব নিয়ে প্রতিষ্ঠাতা করেন দৈনিক পটুয়াখালী। যাহা স্থানীয় পর্যায়ে গনমাধ্যমকে এগিয়ে নিতে অগ্রনী ভুমিকা রেখেছেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশ বার্তা
Theme Customized By TeqmoBD